মঙ্গলবার   ১৮ জানুয়ারি ২০২২   মাঘ ৪ ১৪২৮   ১৪ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

 কুষ্টিয়ার  বার্তা
সর্বশেষ:
পোশাক রপ্তানি: বড় বাজারে বড় প্রবৃদ্ধি আশা জাগাচ্ছে আরও ৯৬ লাখ ফাইজারের টিকা এলো যুক্তরাষ্ট্র থেকে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধের তথ্য গুজব: শিক্ষা মন্ত্রণালয় জীবননগরে কৃষি কাজে জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে ‘রাইস ট্রান্সপ্লান্টার’ গড়াই নদী খনন প্রকল্পে সুফল পাচ্ছে কুষ্টিয়ার বাসিন্দারা চুয়াডাঙ্গায় দুর্বৃত্তরা কেটে ফেলেছে ২৬টি কমলাগাছ মেহেরপুরে ভ্রাম্যমাণ আদালতে দুজনের কারাদণ্ড
২৯২০

কে এই সাংবাদিক রোজিনা ইসলাম

নিউজ ডেস্ক:

প্রকাশিত: ২০ মে ২০২১  

সরকারি নথি চুরি করা প্রথম আলোর সিনিয়র সাংবাদিক রোজিনা ইসলামকে নিয়ে বর্তমানে চলছে যতো আলোচনা-সমালোচনা। আর এ কারণে জনসাধারণের রোজিনা ইসলামের আদ্যোপান্ত জানা জরুরি।

রোজিনা ইসলাম ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ১৯৯৫ সালের ব্যাচের সাংবাদিকতার ছাত্রী। প্রথমাবস্থায় দৈনিক সংবাদ পত্রিকার মাধ্যমে সাংবাদিক হিসেবে তার যাত্রা শুরু হয়। সংবাদমাধ্যমে কাজ করার সুবাদে সিনিয়র সাংবাদিক মনজুরুল আহসান বুলবুলের সঙ্গে তার সখ্যতা গড়ে ওঠে। যিনি পরে তাকে প্রথম আলোর সম্পাদক মতিউর রহমানের সাথে পরিচয় করিয়ে দেন। অতঃপর প্রথম আলোতে যোগ দেন রোজিনা ইসলাম। লোক মুখে জানা যায়, মনজুরুল আহসান বুলবুলের সঙ্গে রোজিনা ইসলামের অবৈধ প্রেমের সম্পর্ক ছিলো।

এছাড়া সাবেক বিদ্যুত প্রতিমন্ত্রী এবং বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকুর সাথে ছিলো তার ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক। রোজিনা-টুকুর সম্পর্কের কথা অপর সাংবাদিক অরুণ কুমার কর্মকার জেনে গেলে ষড়যন্ত্র করে তাকে প্রথম আলো থেকে চাকরীচ্যুত করান রোজিনা। একই কারণে শ্যামল সরকার ও শিশির মোড়ল ইত্তেফাক থেকে চাকরি হারিয়েছেন।

শরীরকে পুঁজি করে সাংবাদিকতা করা রোজিনা ইসলাম এরপর সুসম্পর্ক গড়ে তোলেন তৎকালীন বিএনপির গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রী আবদুল মান্নানের সঙ্গে। যার রেশ ধরে রোজিনা বিএনপি আমলে আওয়ামী লীগ নেতাদের রাজনৈতিক মামলার ওকালতি করেন। যার মাধ্যমে পরবর্তীতে তিনি প্রিমিও গাড়ির মালিক হন।

শুধুমাত্র বিএনপির এজেন্ডা বাস্তবায়নের উদ্দেশ্যে বিদেশি বন্ধু রাষ্ট্র ও সংগঠনকে বাংলাদেশের দেয়া মুক্তিযুদ্ধের সম্মাননা/ক্রেস্টের স্বর্ণের ১২ আনাই মিছে বলে আখ্যায়িত করে একটি মিথ্যা সংবাদ প্রচার করে দেশের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ণ করার চেষ্টা করেন।

সাংবাদিকতাকে অস্ত্র হিসেবে ব্যবহার করে এর আগেও একাধিকবার বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের গোপন নথি রোজিনা ইসলাম বিভিন্ন দেশের কাছে টাকার বিনিময়ে পাচার করে দিয়েছেন। যার কারণে ৩০ হাজার টাকা বেতনে চাকরি করেই ঢাকার খিলগাঁও ও ধানমন্ডি ১৫ তে দুটি ৭ তলা বাড়ি ও বনানীতে আড়াই কোটি টাকা মূল্যের একটি বিলাসবহুল ফ্ল্যাট রয়েছে তার। এছাড়া গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রী আবদুল মান্নানের সঙ্গে অবৈধ সম্পর্কের জেরে রোজিনা নিজের এবং তার স্বামীর নামে রাজউকের কাছ থেকে পূর্বাঞ্চলে একটি ৫ কাঠার প্লট এবং অন্যান্য দুটি প্লট পেয়েছিলেন।

 কুষ্টিয়ার  বার্তা
 কুষ্টিয়ার  বার্তা
এই বিভাগের আরো খবর