বুধবার   ৩০ নভেম্বর ২০২২   অগ্রাহায়ণ ১৫ ১৪২৯   ০৬ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

 কুষ্টিয়ার  বার্তা
সর্বশেষ:
উচ্চমাধ্যমিকে ভর্তিতে আসন সংকট হবে না : শিক্ষামন্ত্রী জামানত নয়, কৃষিঋণে কৃষকের এনআইডি যথেষ্ট: কৃষিসচিব নিজের বাল্যবিবাহ ঠেকানো চুয়াডাঙ্গার শ্রাবন্তী জিপিএ-৫ পেয়েছে চুয়াডাঙ্গায় ২ প্রতিষ্ঠানকে জরিমানা কুষ্টিয়ার এক উপজেলাতেই ২৮টি অবৈধ ইটভাটা!
১২৮

যে কারণে মির্জা ফখরুলের মুখে পাকিস্তানের গুণগান

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২২  

নিউজ ডেস্ক: গত বৃহস্পতিবার (১৫ সেপ্টেম্বর)  ঠাকুরগাঁও শহরের নিজ বাসায় বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, ‘আমরা পাকিস্তান আমলে আর্থিক ও জীবনযাত্রার দিক থেকে এখনকার চেয়ে ভালো ছিলাম।’ তার মুখে পাকিস্তান প্রেমের কথা শুনে দেশব্যাপী শুরু হয়েছে নিন্দার ঝড়।

যেখানে বাংলাদেশ এখন উন্নয়নের চরম শিখরে, আর পাকিস্তান ধীরে ধীরে অভাবের একেবারে কিনারায় এসে পৌঁছেছে, সেখানে এই সময়ে পাকিস্তানের সঙ্গে বাংলাদেশের তুলনা নিতান্তই বোকামি ও ধৃষ্টতা ছাড়া আর কিছুই না।

ঠিক কী কারণে মির্জা ফখরুল সাহেব এমন কথা বললেন, তা নিয়ে শুরু হয়েছে বিস্তর গবেষণা। কেউ কেউ বলছেন, পাকিস্তান আমলে তো মির্জা ফখরুলরা সুবিধাভোগী ছিলেন। 
আর ৭১-এর স্বাধীনতা যুদ্ধে তাদের অবস্থান ছিল পাকিস্তানের পক্ষে। সেজন্যেই পাকিস্তানের শোষণ-নিপীড়ন তাদের চোখে পড়েনি। ৩০ লক্ষ শহিদ আর ২ লক্ষ মা-বোনের সম্ভ্রমের কোনো মূল্য নেইতাদের কাছে।

এখন পাকিস্তানের চেয়ে প্রতিটি ক্ষেত্রে এগিয়ে যাচ্ছে বাংলাদেশ। তখন বিএনপি ও অন্যান্য দলের গায়ে জ্বালা ধরে। আর পাকিস্তানের এসব দৈন্যদশা দেখে অনেকের কষ্ট হয়। যে দেশের প্রধানমন্ত্রী ভিক্ষা চাইতে বিদেশ সফরে গিয়ে হাসির পাত্র হয়। সেই দেশেই তো ফিরে যেতে চাওয়াটা আসলেই লজ্জাকর।

মির্জা ফখরুলের এমন কথাই প্রমাণ করে তিনি আজ অবধি পাকিস্তানের প্রেম থেকে বেরুতে পারেননি। বাংলাদেশের অগ্রগতি, সাফল্য, উন্নয়ন ও অর্জন যখন বিশ্বব্যাপী প্রশংসিত, তখন বিএনপি মহাসচিবের পাকিস্তান আমলের প্রশংসা করে বক্তব্য রাষ্ট্রদ্রোহীতার সামিল।

বিশিষ্টজনরা বলছেন, উন্নয়নের এই বাংলাদেশে যারা এখনো মানিয়ে নিতে পারছে না, তাদের হাতে রাষ্ট্রীয় ক্ষমতা গেলে ঝুঁকিতে পড়বে দেশের উন্নয়ন। তাই সাবধান হোন, ওদের হাতে ক্ষমতা তুলে দেওয়ার আগে সতর্ক থাকুন।

 কুষ্টিয়ার  বার্তা
 কুষ্টিয়ার  বার্তা
এই বিভাগের আরো খবর