মঙ্গলবার   ১৭ মে ২০২২   জ্যৈষ্ঠ ২ ১৪২৯   ১৫ শাওয়াল ১৪৪৩

 কুষ্টিয়ার  বার্তা
সর্বশেষ:
চুয়াডাঙ্গায় ভুয়া ডাক্তারকে দেড় লাখ টাকা জরিমানা পেঁয়াজের উৎপাদন বেড়েছে ২ লাখ ৭৯ হাজার টন এবার হজ কার্যক্রম পরিচালনার অনুমতি পেল ৭৮০ এজেন্সি আগামী দুই বছরের মধ্যে পৃথিবী হবে ডাটানির্ভর ডিজিটালের পরবর্তী পদক্ষেপ স্মার্ট বাংলাদেশ
১৫১৪

‘সবাই যে আমাকে এখন দিঘীর বাবা বলে এটাই আমার প্রাপ্তি’

বিনোদন ডেস্ক

প্রকাশিত: ৭ জানুয়ারি ২০১৯  

‘বাবা জান? আমাদের বাসায় যে ময়না পাখিটা আছে না? ও না আজকে আমার নাম ধরে ডেকেছে। আর এই কথাটা না মা কিছুতেই বিশ্বাস করছে না। কেমন লাগে বল তো বাবা? আমি কি তাহলে ভুল শুনেছি? তুমি আজকে বাসায় এসে মাকে অবশ্যই বকে দেবে। আচ্ছা বাবা রাখি তুমি তাড়াতাড়ি চলে এসো কিন্তু।’- এই সংলাপটি যে ছোট্ট মেয়েটির কণ্ঠে শোনা যেত সেই দিঘী কিন্তু আর ছোট্টটি নেই। শিশুশিল্পী হিসেবে ৩৬টি সিনেমায় অভিনয় করার পর হঠাৎ বিরতি। এরপর আর দেখা যায়নি এই ক্ষুদে তারকাকে। বর্তমানে পড়াশোনায় মনোযোগ দিয়েছেন তিনি।

গ্রামীণফোনের বিজ্ঞাপনে অভিনয় করে সকলের নজরে আসেন দিঘী। কাজী হায়াৎ পরিচালিত ‘কাবুলিওয়ালা’ সিনেমা দিয়ে চলচ্চিত্রে আসেন তিনি। এখন পর্যন্ত প্রায় ৩৬টি সিনেমায় শিশু শিল্পী হিসেবে অভিনয় করেছেন। এর মধ্যে এ সময়ের প্রায় অনেক তারকাদের সঙ্গে কাজ করেছেন। ২০১২ সালের পর তাকে আর সিনেমাতে দেখা যায় নি। দিঘী এবার স্কলাস্টিকা স্কুলে পড়াশোনা করছেন। এ বছর এসএসসি পরীক্ষা দিবেন। তাই পড়াশোনা নিয়ে বেশ ব্যস্ত রয়েছেন।

চলচ্চিত্র পাড়ায় অনেকদিন ধরেই গুঞ্জন চলে আসছে যে দিঘী নায়িকা হয়ে ফিরছেন। এ বিষয়ে দিঘীর বাবা চলচ্চিত্র অভিনেতা সুব্রত বড়ুয়া বলেন, এটা অনেকেই বলে আসছেন এমনটাই শুনছি অনেকদিন থেকে। কিন্তু আমার মেয়ে এখন পড়াশোনা নিয়ে ব্যস্ত, আগামী মাস থেকেই তার এসএসসি ফাইনাল পরীক্ষা। এখনই এসব নিয়ে ভাবছি না। পড়াশোনা টা একটু শেষ করুক ভালো করে এরপর হয়তো সে আবারও সিনেমায় আসবে। আর নায়িকা হয়ে সিনেমায় আসার জন্য একটা প্রস্তুতির দরকার আছে। সে নিজেকে ওইভাবে প্রস্তুত করেই তবে আসবে কিন্তু তার আগে পড়াশোনাটা দরকার খুব।

অভিনয়ের প্রতি দিঘীর আগ্রহ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, আমি আর দিঘীর মা দুজনেই চলচ্চিত্রের মানুষ। দিঘির মা গত হয়েছেন ৭ বছরেরও বেশি সময় হয়ে গেল। আর দিঘী তো শিশু শিল্পী হিসেবে অনেকগুলো ছবিতেই অভিনয় করেছে। আমি জানি ওর ভিতরে অভিনয়ের তেজটা কত। ও সেটা ভেতরে লালন করে। নিজেকে আরও প্রস্তুত করুক তারপর হয়তো একটা কিছু হবে।

যোগ করে তিনি আরও বলেন, গ্ল্যামার জগতটা মানুষকে খুব আকৃষ্ট করে। নায়িকা মানেই তো গ্ল্যামার। একটা সময় যখন ভিতরে স্টার ভাবটা চলে আসে তখন কিন্তু সাধারণ হতে অনেক কষ্ট হয়। দিঘী এমন একটা জায়গায় ছিল তার অভিনয় দিয়ে তার এতটুকুন বয়সে সেটা সত্যিই অনেক গর্বের। এখন তো আর কেউ আমাকে আমার নামে চেনেন না, সবাই চেনেন দিঘীর বাবা হিসেবে। আমি রাস্তাঘাটে বের হলে সবাই বলে ‘দিঘীর বাবা’। অথচ আমি আরও ৩০ বছর আগে নায়ক ছিলাম কিংবা এখনও অভিনয় করে যাচ্ছি সেটা অনেকেই এখন ভুলে গিয়েছে। আমার নামটা হারিয়ে গিয়েছে আমার মেয়ের মাঝে। আর যে জায়গাটায় দিঘি তার অভিনয় শেষ করেছিল সেটা যেনো আরও অতিক্রম করতে পারে সেজন্য তাকে কিন্তু তৈরি করতে হবে। লেখাপড়াটা ঠিক মত শেষ করতে পারলে সে নিজেকে ঠিকমত তৈরি করতে পারবে।

আমি শুধু দেখিয়ে দিতে পারবো এটা ভালো রাস্তা, এটা খারাপ রাস্তা। সে নিজে যখন জানতে পারবে ভালো রাস্তা দিয়ে যাওয়া ভালো, খারাপ রাস্তা দিয়ে যাওয়া ভালো না তখন সেই নির্ধারণ করে নিবে সে কোন পথে যাবে, আমার বলতে হবে না। এই রাস্তাটা যদি তৈরি করে দিতে না পারি তাহলে সে কিছুই করতে পারবে না। এজন্য আপাতত বন্ধ করে রেখেছি, আগে সে বুঝুক নিজের জন্য কোনটা ভালো কোনটা মন্দ! তারপর সে নিজেই নিজের বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিবে।

সবাই যে আমাকে এখন দিঘীর বাবা বলে এটাই আমার প্রাপ্তি। আমি যখন অভিনয় শুরু করেছিলাম সে সময়কার দর্শক তো এখন আর নেই। তখন তারা আমাকে আমার নামেই চিনতো। এরপর যখন শাবনূরের বাবা, মান্নার বাবা এ রকম চরিত্র করা শুরু করি তখন আমাকে সবাই ওভাবেই চিনতো। আর দিঘী তো তখন দিঘী ছিল না। সুব্রতের মেয়ে, দোয়েলের মেয়ে এভাবেই তাকে চিনতো। কিন্তু একটা সময় যখন দিঘী আমাদের অভিনয়কেও ছাড়িয়ে গেল তখন তার নিজের একটা পরিচয় হলো। তখন সবাই আমাকে দিঘীর বাবা বলে চিনতে শুরু করে। আমি মনে করি এটাই আমার জন্য অনেক বড় প্রাপ্তি।

প্রথম চলচ্চিত্রে ‘কাবুলিওয়ালা’তে অভিনয় করেই ২০০৬ সালে ‘শ্রেষ্ঠ শিশুশিল্পী’ হিসেবে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার অর্জন করে দিঘী। তারপরে আরও দুটি চলচ্চিত্রে অভিনয়ের কারণে শ্রেষ্ঠ শিশু চলচ্চিত্র অভিনেত্রী হিসেবে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার জয় করে সে। দিঘি অভিনীত উল্লেখযোগ্য চলচ্চিত্রগুলো হলো ‘দাদীমা, চাচ্চু, সাজঘর, বাবা আমার বাবা, ১ টাকার বউ, অবুঝ শিশু, রিকসাওয়ালার ছেলে, চাচ্চু আমার চাচ্চু, দ্যা স্পিড।’

 কুষ্টিয়ার  বার্তা
 কুষ্টিয়ার  বার্তা
এই বিভাগের আরো খবর