শনিবার   ০৩ ডিসেম্বর ২০২২   অগ্রাহায়ণ ১৮ ১৪২৯   ০৯ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

 কুষ্টিয়ার  বার্তা
সর্বশেষ:
বিজয়ের মাসকে ‘মুক্তিযোদ্ধা মাস’ ঘোষণার দাবি দেশে করোনার টিকার চতুর্থ ডোজ দেওয়া হবে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী পাঁচ বছরের মধ্যে সারাদেশে বিদ্যুতের তার মাটির নিচে যাবে সারা দেশে পুলিশের পক্ষকালব্যাপী বিশেষ অভিযান শুরু কুষ্টিয়ায় খেজুরের রস সংগ্রহে ব্যস্ত গাছিরা ঐতিহাসিক পার্বত্য শান্তি চুক্তির ২৫ বছর পূর্তি ঢাকায় অগ্নিসন্ত্রাসীদের বিশৃঙ্খলার লাইসেন্স দেয়া হবে না পদ্মা সেতুর সুফল পেতে শিল্পকারখানার প্রত্যাশা
৭০০

সিরিজ জয়ে আইসিসি সুপার লিগের শীর্ষে বাংলাদেশ

প্রকাশিত: ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২২  

ঘরের মাঠে আফগানদের বিরুদ্ধে টানা দুটি ওয়ানডে জয়ে সিরিজ নিশ্চিত করেছে বাংলাদেশ। এই জয়ের ফলে আইসিসির ২০২২-২০২৩ সেশনের সুপার লিগে শীর্ষে উঠেছে টাইগাররা।

প্রথম ম্যাচে টানটান উত্তেজনা ছড়িয়ে জিতলেও আজ দ্বিতীয় ওয়ানডেতে আফগানদের কোনো সুযোগই দেয়নি টাইগাররা। শুরুতে ব্যাটিং করে লিটনের শতক ও মুশফিকের অর্ধশত রানে ভর করে ৩০৬ রান তোলে বাংলাদেশ। 

জবাবে খেলতে নেমে ২১৮ রানে অলআউট হয়ে যায় সফরকারী আফগানরা। এতে ৮৮ রানে জয় নিশ্চিত হয় স্বাগতিকদের। এর ফলে একদিনের ক্রিকেটে ২৭ নম্বর দ্বিপাক্ষিক সিরিজ জয়ের স্বাদ পেল বাংলাদেশ। ঘরের মাঠে টানা পঞ্চম এবং সব মিলিয়ে টানা তৃতীয় ওয়ানডে সিরিজ জয়।

এটি আফগানদের বিপক্ষে বাংলাদেশের প্রথম তিনশ পার করা পুঁজি। ৩০৭ রানের বিশাল লক্ষ্য টপকাতে নেমে ২১৮ রানে অলআউট হয় আফগানরা। এতে ৮৮ রানের জয়ে এক ম্যাচ হাতে রেখেই সিরিজ জয় নিশ্চিত হয় তামিম ইকবালদের।

শুক্রবার চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে টস জিতে ব্যাট করতে নেমে শুরুটা অতোটাও দাপুটে হয়নি বাংলাদেশ দলের। ৩৮ বলে ৩৮ রানের পার্টনারশিপ গড়েন তামিম ইকবাল আর লিটন দাস। দুটি চার মারলেও তামিম আউট হয়ে যান ১২ রানেই। তামিমের মতো সুবিধা করতে পারেননি সাকিবও (২০)।

এরপরের গল্পটা লিটন আর মুশফিকের। এক-দুই রান করে নিয়ে জুটি বড় করতে থাকেন দুই জন। লিটন পঞ্চাশে পা রাখেন ৬৫ বলে, মুশফিক ৫৬ বলে। অনবদ্য ব্যাটিংয়ে রেকর্ড বই ওলটপালট করেন এই দুই জন। তৃতীয় উইকেট জুটিতে তোলেন ২০২ রান। যা বাংলাদেশের হয়ে সর্বোচ্চ।

আউট হওয়ার আগে ওয়ানডে ক্যারিয়ারের পঞ্চম সেঞ্চুরি তুলে নেন লিটন। লিটনের সঙ্গে সেঞ্চুরির পথে হাঁটছিলেন মুশফিক। তবে শেষ পর্যন্ত আক্ষেপ নিয়ে মাঠ ছাড়তে হয় তাকে।

লিটনের আউটের পরের বলেই ফরিদকে আপার কাট করতে গিয়ে ৮৬ রানে আউট হন মুশফিক। তবে সেঞ্চুরি মিসের দিনে সতীর্থ সাকিবকে টপকে গেছেন মুশফিক। একদিনের ক্রিকেটে ৬৬৩০ রান নিয়ে সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহকের তালিকায় দ্বিতীয় স্থানে ছিলেন সাকিব। আজ এই ইনিংসটি খেলে ৬৬৭০ রান নিয়ে সাকিবকে টপকে গেছেন মুশফিক।

নির্ধারিত ৫০ ওভার শেষে ৪ উইকেট হারিয়ে ৩০৬ রানের সংগ্রহ পায় বাংলাদেশ দল। আফগানিস্তানের পক্ষে ফরিদ আহমেদ সর্বোচ্চ ২ উইকেট নেন।

৩০৭ রানের বড় লক্ষ্য তাড়ায় শুরুর ওভারে ৯ রান তুলে ঝড়ো সূচনার ইঙ্গিত দিলেও লাভ হয়নি। পরের ওভারে দ্রুত রান নিতে গিয়ে আফিফ হোসেন ধ্রুবের সরাসরি থ্রোতে রানআউট হয়ে ফেরেন রিয়াজ। তিনে নামা হাসমতউল্লাহ শহিদিকে চতুর্থ ওভারের পঞ্চম বলে ফেরান শরিফুল।

মাত্র ১৬ রানে ২ উইকেট হারিয়ে বিপাকে পড়া দলকে প্রতিরোধ গড়ে দিতে ব্যর্থ হন আজমতউল্লাহ ওমরজাই। সাকিবের করা দশম ওভারে মুশফিকের স্টাম্পড হয়ে ফেরেন তিনি।

চতুর্থ উইকেট জুটিতে ঘুরে দাঁড়ানোর ইঙ্গিত দেন ওপেনার রহমত শাহ ও নাজিবউল্লাহ জাদরান। ব্যাট করার সুযোগ অর্ধশতক তুলে নেন রহমত। যদিও এরপর আর বেশিদূর যেতে পারেননি তিনি। তাসকিনের বলে বোল্ড হন ৫২ রানে। এতে তাদের ৮৯ রানের জুটি ভাঙে। 

শেষ দিকে মোহাম্মদ নবির ৪০ বলে ৩২ এবং রশিদ খানের ২৬ বলে ২৯ রান আফগানিস্তানের হারের ব্যবধানই কমিয়েছে শুধু। রহমানউল্লাহ গুরবাজ, মুজিব উর রহমান, ফরিদরা ব্যর্থ হলে ২১৮ রানে গুটিয়ে যায় সফরকারীরা। 

৮৮ রান ও ২৯ বল হাতে রেখে জয় পায় বাংলাদেশ দল। এই জয়ের ফলে ১ ম্যাচ হাতে রেখেই সিরিজ জয় নিশ্চিত করে তামিম ইকবালের দল। বাংলাদেশের হয়ে সাকিব এবং তাসকিন ২টি করে উইকেট নেন।

 কুষ্টিয়ার  বার্তা
 কুষ্টিয়ার  বার্তা
এই বিভাগের আরো খবর