মঙ্গলবার   ২৮ জুন ২০২২   আষাঢ় ১৩ ১৪২৯   ২৭ জ্বিলকদ ১৪৪৩

 কুষ্টিয়ার  বার্তা
সর্বশেষ:
কুষ্টিয়ায় বেড়েছে পাটের চাষ ৫ ঘণ্টায় মেহেরপুরের সবজি কাওয়ানবাজারে জনগণের ভাগ্য বদলই একমাত্র লক্ষ্য : প্রধানমন্ত্রী পদ্মা সেতুতে চলছে সেনাবাহিনীর টহল কোরবানি উপলক্ষে প্রস্তুত মেহেরপুরের খামারিরা ছুটি শুরুর দু’দিন আগেই হল ত্যাগের নির্দেশ
৯৮৭

শীতের সকালে সেদ্ধ ডিম

প্রকাশিত: ৫ জানুয়ারি ২০১৯  

ডিম এমনই একটি খাদ্য যেদি ছোট বড় সকলেরই পছন্দের। ডিম সেদ্ধ হোক, অমলেট অথবা হোক যেকোনো মেন্যু সকলেই ডিম খেয়ে থাকেন! তবে জানেন কি! শীতকালে প্রতিদিন সকালে একটি করে সেদ্ধ ডিম খেলে সেটা শরীরের জন্য খুবই উপকারি। সে সম্পর্কে জেনে নিন-

 

সকাল বেলা থেকে মানুষের কর্মব্যস্ততা শুরু হয়। অনেকেই ব্যস্ততার কারণে সকালের নাস্তার সময় পান না। তাই সকাল বেলা খুব সহজেই একটা ডিম সেদ্ধ করে খেতে পারেন। আর ডিম সেদ্ধ খেলে শরীরেও কোনো সমস্যা হবে না। কারণ সেদ্ধ ডিমে রয়েছে ভিটামিন, প্রোটিন ও শরীরের জন্য উপকারি চর্বি উপাদান। তাই সকাল বেলা একটি সেদ্ধ ডিম খেলে সারাদিন শরীরে শক্তি পাওয়া যায়।

সেদ্ধ ডিমে শরীরের জন্য উপকারি চর্বি রয়েছে রয়েছে। যেগুলো সেচুরেটেড ফ্যাটকে সরিয়ে দিয়ে তার স্থান দখল করে। আর এতে রক্তে কোলেস্ট্ররলের পরিমাণ অনেকটাই কমিয়ে দেয়। ফলে হৃদপৃন্ডের স্বাস্থ্য ভালো থাকে। হার্টের জন্য উপকারি এ চর্বিগুলো ইনসুলিনও নিয়ন্ত্রণ করে থাকে। এটা রক্তে চিনির পরিমাণও নিয়ন্ত্রণে রাখতে সাহায্য করে। বিশেষ করে টাইপ ২ ডায়বেটিসের জন্য এ ধরণের ফ্যাট খুবই উপকারি। সেদ্ধ ডিমের দুই তৃতীয়াংশই এ ধরণের ফ্যাট দিয়ে গঠিত। সুতরাং শীতকালে অনেকে ঠান্ডায় কোনো কিছু না খেলেও একটা সেদ্ধ ডিম খেতে হবে।

এছাড়া সেদ্ধ ডিমে প্রকৃতিকভাবেই প্রচুর পরিমাণে প্রোটিন থাকে। সকাল বেলা একটি সেদ্ধ ডিম খেলে ৬ গ্রামের বেশি প্রোটিন পাওয়া যায়। সেই সঙ্গে চোখের স্বাস্থ্য ভালো রাখে সেদ্ধ ডিম। ডিমের একটি প্রধান খাদ্য উপাদান হলো ভিটামিন এ। ভিটামিন এ রেটিনার আলো শুষে নিতে সাহায্য করে। কর্নিয়ার পাশের মেমব্রনকে রক্ষা করে আর রাত কানা রোগের ঝুঁকি অনেক কমিয়ে দেয়। তাই প্রতিদিন একটি করে সেদ্ধ ডিম খেলে খাবারের তালিকায় ৭৫ মাইক্রোগ্রাম ভিটামিন এ যুক্ত হয়। শুধু তাই নয়, হাড় গঠনের ক্ষেত্রেও সেদ্ধ ডিম খুবই উপকারি। সেদ্ধ ডিমে রয়েছে ভিটামিন ডি। যা হাড় ও দাঁত শক্ত করে।

ভিটামিন ডি খাবার থেকে ক্যালসিয়াম গ্রহণ করতে সাহায্য করে। আর এটা রক্তের ক্যালসিয়ামের মাত্রাও নিয়ন্ত্রণ করে থাকে। ফলে শরীরের হাড়ের কাঠামো মজবুত ও শক্ত করে। সেই সঙ্গে শরীরে শক্তি যোগাবে সেদ্ধ ডিম। একটি বড় সেদ্ধ ডিমে প্রায় ৮০ ক্যালরি রয়েছে। এর মধ্যে ৭ শতাংশ ক্যালরি আসে চর্বি থেকে। তাই সকাল বেলা সেদ্ধ ডিম খেলে শরীরে সারাদিন শক্তি পাওয়া যায় ও শরীরের দুর্বলতাও অনেক কমে যায়। কেউ যদি ক্যালরি কম খেতে চান তবে ডিমের কুসুম না খেয়ে শুধু সাদা অংশ খেতে পারেন। তাহলে ডিমের ক্যালরি অর্ধেকেরও বেশি কমে যাবে। তাই প্রতিদিন সকালেই একটি করে ডিম খাওয়ার অভ্যাস করতে হবে। এতে শরীর সুন্দর, সতেজ ও স্বাস্থ্যবান হবে। তবে ডিমে কোনো রকম সমস্যা থাকলে অবশ্যই চিকিৎসকের পরামর্শ নিয়ে খেতে হবে।

 কুষ্টিয়ার  বার্তা
 কুষ্টিয়ার  বার্তা
এই বিভাগের আরো খবর