বৃহস্পতিবার   ১৯ মে ২০২২   জ্যৈষ্ঠ ৫ ১৪২৯   ১৭ শাওয়াল ১৪৪৩

 কুষ্টিয়ার  বার্তা
সর্বশেষ:
জাতীয় ক্রীড়া পুরস্কার পাওয়ায় শুভেচ্ছায় সিক্ত ইবি ভিসি জিআই সনদ পেলো বাগদা চিংড়ি বাজেট অধিবেশন বসছে ৫ জুন অ্যান্টিবায়োটিক ওষুধ নিয়ে সরকারের নতুন সিদ্ধান্ত হজের নিবন্ধনের সময় বাড়লো
৯৩

জীবন্ত পাথর, দৌড়ায় একাই!

প্রকাশিত: ১৭ জানুয়ারি ২০২২  

সৃষ্টির অনেক রহস্য আছে যার বেশির ভাগ এখনো অজানা এবং ব্যাখাহীন। বিচিত্র প্রকৃতি ভালোবাসে রহস্য, যা মানবজাতিকে বরাবরের মতোই অবাক করে দিতে বাধ্য। এমনি একটি পাথর যা সাধারণ হয়েও অসাধারণ এবং একই সঙ্গে রহস্যময়।

এক অদ্ভুত পাথর যাকে বলা চলে জীবন্ত পাথর। পাথরটির আরেক নাম রানিং রক বা সেইলিং স্টোন। অদ্ভুতভাবে কোনো প্রকার বলপ্রয়োগ করা ছাড়াই এই পাথর এক জায়গা থেকে অন্য জায়গায় সরে যেতে পারে। যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়া রাজ্যের সমুদ্র তীরবর্তী অঞ্চলে এমন পাথরের সন্ধান মিলেছে। এই রানিং রক বা জীবন্ত পাথর আকৃতিতে বড় হয়েও অনায়াসে জায়গা পরিবর্তন করতে পারে। এক স্থান থেকে সরে আসার সময় পেছনে লম্বা ট্র্যাক ফেলে আসে।

এটি কখনো সোজা পথে এগোয় না ডানে বা বাম দিকে তির্যক ভঙ্গিতে অগ্রসর হয়। ইউরোপের অনেক দেশের বালিময় সমুদ্রসৈকতেও এমন পাথরের দেখা মেলে। পাথরের এই একা একা চলার উৎস বা এর গতি সঞ্চার হওয়ার সঠিক কারণ যদিও নির্ণয় করা সম্ভব হয়নি। তবে, বিজ্ঞানীরা ধারণা করছেন প্রচণ্ড ঝড়ো বাতাসের সঙ্গে পিচ্ছিল মাটির কারণে পাথরগুলো আস্তে আস্তে এক জায়গা থেকে অন্য জায়গা সরে যেতে থাকে। 

কিন্তু এমনটি হলে দুটো প্রশ্ন হতে পারে, একটি হলো তাহলে কেন এগুলো চলার সময় মানুষের চোখে পড়ে না? আর অন্যটি হলো বিশাল আকৃতির পাথর ঝড়ো বাতাসে সরে যাওয়াটা কতটা যুক্তিসংগত?

কিছু বিজ্ঞানী আবার ধারণা করেন, আবহাওয়া পরিবর্তনের সময় উপকূলবর্তী অঞ্চলে মাটির অভ্যন্তরে মৃদু কম্পনের ফলে পাথরগুলো ক্রমশ ঢালু স্থানের দিকে সরে যায়। তবে কোন গবেষনাই পাথরগুলোর চলার পথে ট্র্যাক ফেলে যাওয়ার পেছনে যুক্তিযুক্ত কারণ দেখাতে পারেনি। 

তাই গবেষকরা বিস্মিত হয়ে এর নাম দিয়েছেন মুভিং রক। সবচেয়ে বড় যে সেইলিং স্টোনটির সন্ধান পাওয়া গেছে তার ওজন প্রায় ৩২০ কেজি। স্থানীয়রা অবশ্য এটিকে সৌভাগ্যের প্রতীক বলেই মনে করেন।

তাদের মতে, সৈকতে ঘুরে ঘুরে পাথরগুলো তাদের পাহারা দেয় এবং অধিবাসীদের সামুদ্রিক বিপর্যয় থেকে বাঁচায়। পাথরগুলোর চলার গতি থেকে অনেকে নাকি আবার সামুদ্রিক ঝড় সম্পর্কেও আগে থেকে ধারণা করে থাকেন। বালুময় পথে পাথরগুলোর অনির্দিষ্ট যাত্রা চলছে অবিরত।

 কুষ্টিয়ার  বার্তা
 কুষ্টিয়ার  বার্তা
এই বিভাগের আরো খবর