বুধবার   ১০ আগস্ট ২০২২   শ্রাবণ ২৬ ১৪২৯   ১২ মুহররম ১৪৪৪

 কুষ্টিয়ার  বার্তা
৫৭০৬

সরকারী সহায়তায় অনিয়ম করছে বিকাশ!

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ২৭ মে ২০২১  

সিপিডি, অক্সফাম ইন বাংলাদেশ এবং ইউরোপীয় ইউনিয়ন-এর পক্ষ থেকে করোনা মোকাবেলায় ত্রাণ কর্মসূচি: কতটা কার্যকর ছিল? শীর্ষক একটি ভার্চুয়াল সংলাপের আয়োজন করা হয়।

বাংলাদেশ সরকারের এসডিজি বাস্তবায়ন প্রক্রিয়াকে যথাযথ সহযোগিতা দেওয়ার উদ্দেশ্যে সিপিডি, অক্সফাম ইন বাংলাদেশ এবং ইউরোপীয় ইউনিয়ন দেশের ১৩টি জেলায় “গণতান্ত্রিক সুশাসনে জনসম্পৃক্ত প্রতিষ্ঠানের অংশগ্রহণ” শীর্ষক একটি প্রকল্প পরিচালনা করছে। প্রকল্পের উদ্দেশ্য হচ্ছে এসডিজি বাস্তবায়ন প্রক্রিয়ায় স্থানীয় সরকারসহ বেসরকারি পর্যায়ের অন্যান্য সকল সংশ্লিষ্ট অংশীজনের অংশগ্রহণ ও সক্রিয় অবদান রাখার সুযোগ সৃষ্টির লক্ষ্যে তাদের সক্ষমতা তৈরির চেষ্টা করা। এই সংলাপটি এ প্রকল্পের আওতায় অনুষ্ঠিত হয়।

এতে প্রধান অতিথি হিসেবে ভার্চুয়ালী অংশগ্রহন করেন ত্রাণ ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী ডা. এনামুর রহমান এমপি। পুরো অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনায় ছিলেন সেন্টার ফর পলিসি ডায়ালগের (সিপিডি)  সম্মাননীয় ফেলো  ড. দেবপ্রিয় ভট্টাচার্জ। 

এসময় অনুষ্ঠানে অংশগ্রহনকারী বরগুনার জেলা নেটওর্য়াকের সভাপতি হাসানুর রহমান ঝন্টু বলেন, বিকাশের মাধ্যমে যে সহায়তাটা দেয়া হচ্ছে। সেখানে অনেক অনিয়ম, দুর্নীতি হচ্ছে। অনেকক্ষেত্রেই অনেকে আর্থিক সহায়তাটা পাচ্ছে না। দু-একটা ডিজিটাল নাম্বারের কারনে সে টাকাটা তারা পাচ্ছে না। দুর্নীতিটা হলো আমার নাম্বারটায় বিকাশ আছে।  সে নাম্বারটা সেখানে দেয়া আছে। দু-একটা নাম্বার মিসিং হওয়াতে সে আর টাকাটা আর পাচ্ছে না সুবিধাভোগি মানুষটি। পরবর্তীতে বিকাশ আর সেটার খোঁজ নিচ্ছে না। এমন কি সে টাকাটাও দেয়া কোন রকম ব্যবস্থা নিচ্ছে না। এক্ষেত্রে সরকারি সহায়তার টাকাটা কোথায় গেলো?

সরকার প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর উন্নয়নে বিভিন্ন  প্রণোদনা দিচ্ছে। সেই প্রণোদনার অর্থ নিয়ে সাধারন সুবিধাভোগী মানুষকে নয়-ছয় বুঝিয়ে অর্থ আত্মসাৎ করে চলেছে বিকাশ। 

এ বিষয়ে সচেতন মহল মনে করছেন এধরণের প্রণোদনার অর্থ বিতরণে একাধিক প্রতিষ্ঠানকে দ্বায়িত্ব না দিয়ে  আরো সচেতন এবং নির্ভরযোগ্য প্রতিষ্ঠানকে এককভাবে দ্বায়িত্ব দেয়া  প্রয়োজন।

 কুষ্টিয়ার  বার্তা
 কুষ্টিয়ার  বার্তা