শনিবার   ০৩ ডিসেম্বর ২০২২   অগ্রাহায়ণ ১৮ ১৪২৯   ০৯ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

 কুষ্টিয়ার  বার্তা
সর্বশেষ:
বিজয়ের মাসকে ‘মুক্তিযোদ্ধা মাস’ ঘোষণার দাবি দেশে করোনার টিকার চতুর্থ ডোজ দেওয়া হবে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী পাঁচ বছরের মধ্যে সারাদেশে বিদ্যুতের তার মাটির নিচে যাবে সারা দেশে পুলিশের পক্ষকালব্যাপী বিশেষ অভিযান শুরু কুষ্টিয়ায় খেজুরের রস সংগ্রহে ব্যস্ত গাছিরা ঐতিহাসিক পার্বত্য শান্তি চুক্তির ২৫ বছর পূর্তি ঢাকায় অগ্নিসন্ত্রাসীদের বিশৃঙ্খলার লাইসেন্স দেয়া হবে না পদ্মা সেতুর সুফল পেতে শিল্পকারখানার প্রত্যাশা
৪৩

‘সিনেমায় কাজ পেতে গেলে শরীর দিতে হবে’

প্রকাশিত: ৭ অক্টোবর ২০২২  

বলিউডে কাস্টিং কাউচ নিয়ে বিস্ফোরক মন্তব্য করেছেন অভিনেত্রী শামা সিকান্দার। সম্প্রতি, একটি সংবাদমাধ্যমকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে এ নিয়ে মুখ খুলেছেন একসময়ের হিন্দি টেলি পর্দার জনপ্রিয় অভিনেত্রী।

শামার কথায়, শরীরের বদলে কাজ পাও একসময় বলিউডে এটাই ছিল কাজ পাওয়ার অলিখিত শর্ত। যদিও এখন সেই পরিস্থিতি বদলেছে বলেই দাবি করেন অভিনেত্রী শামা সিকান্দার।

সম্প্রতি দেওয়া সাক্ষাৎকারে শামা সিকান্দার বলেন, ক্যারিয়ারে শুরুর দিকে বলিউডে কাস্টিং কাউচের অভিজ্ঞতা তাকে মানসিকভাবে বিপর্যস্ত করে তুলেছিল। অভিনেত্রীর কথায়, 'এখন তো পরিস্থিতি বদলে গিয়েছে। যেটা ইন্ডাস্ট্রির জন্য সত্যিই ভালো। এই প্রজন্মের পরিচালক প্রযোজকরা অনেক পেশাদার। তাঁরা শিল্পীদের সম্মান দেন। তাঁদের মধ্যে যৌনতার বদলে কাজ পাওয়ার ভাবনাটাই নেই। কেরিয়ারের শুরুর দিকে এক প্রযোজক আমাকে বন্ধুত্বের প্রস্তাব দেয়। আমি সেকথা শুনে বলেছিলাম, কাজ না করলে বন্ধুত্ব কীভাবে হতে পারে! পরে বুঝতে পারি, সেটা ছিল আসলে যৌনতার প্রস্তাব। এখন শরীরের বদলে কাজ পাওয়ার রীতি অনেকটাই বদলেছে। সেসময় পরিস্থিতিতে অনেকেই নিরাপত্তাহীনতায় ভুগতেন, আতঙ্কের মধ্যে কাটাতেন। বলিউডের নামী প্রযোজকরাই এমনটা করতেন। শরীরের বদলে কাজ পাওয়ার বিষয়টিই অত্যন্ত নিম্নরুচির। আত্মবিশ্বাসের অভাবে অনেকেই এই ফাঁদে পা দিতেন।'

শামার কথায়, 'সেই দিনগুলি আমায় চ্যালেঞ্জের কথা মনে করিয়ে দেয়। তখন মনে হত জীবন কত কঠিন। সেসময়ই পরিস্থিতি আমায় একসময় মানসিকভাবে বিপর্যস্ত করে তুলেছিল। আমি মানসিক অবসাদে ভুগছিলাম। এখন মনে হয়, এখনকার মতো বুদ্ধি, বিবেচনা যদি তখন আমার থাকত, তাহলে হয়ত ওই পরিস্থিতি হত না। তবে আমি এখন জীবনকে অন্য দৃষ্টিভঙ্গিতেই দেখি। তবে এটা ঠিক, আামার এই অভিজ্ঞতাই বর্তমানে আমিকে তৈরি করেছে। তবে আমি কখনওই চাইনা, আমি যে মানসিক ট্রমার মধ্যে কাটিয়েছি, সেভাবে আর কেউ কাটাক।'

তবে শামা জানান, শুধু বলিউডে নয় কাস্টিং কাউচ বিষয়টাই পৃথিবীর সর্বত্র রয়েছে। তবে কিছু লোকজনের এই কাস্টি কাউচের জন্য গোটা ইন্ডাস্ট্রিকেও দায়ী করা যায় না। কাস্টিং কাউচের প্রসঙ্গে এলে বলিউড নিয়ে আলোচনা হয়, কারণ বলিউড নিয়ে মানুষের আগ্রহ সবথেকে বেশি। ২০০৪ সালে টিভি শো 'ইয়ে মেরি লাইফ হ্যায়'-এর হাত ধরে প্রথমবার পর্দায় এসেছিলেন শামা সিকান্দার, জনপ্রিয়তাও পেয়েছিলেন। পরবর্তীকালে 'CID', 'মন মে হ্যায় বিশ্বাস'-এর মতো ধারাবাহিকে দেখা গিয়েছে শামাকে। বেশকিছু হিন্দি ছবিতেও সহ শিল্পীর ভূমিকায় দেখা গিয়েছে শামা সিকান্দারকে। এবছর ১৫ মার্চ গোয়াতে দীর্ঘদিনের বন্ধু জেমস মিলিরনকে বিয়ে করেন শামা।

 কুষ্টিয়ার  বার্তা
 কুষ্টিয়ার  বার্তা
এই বিভাগের আরো খবর