বৃহস্পতিবার   ১৯ মে ২০২২   জ্যৈষ্ঠ ৫ ১৪২৯   ১৭ শাওয়াল ১৪৪৩

 কুষ্টিয়ার  বার্তা
সর্বশেষ:
জাতীয় ক্রীড়া পুরস্কার পাওয়ায় শুভেচ্ছায় সিক্ত ইবি ভিসি জিআই সনদ পেলো বাগদা চিংড়ি বাজেট অধিবেশন বসছে ৫ জুন অ্যান্টিবায়োটিক ওষুধ নিয়ে সরকারের নতুন সিদ্ধান্ত হজের নিবন্ধনের সময় বাড়লো
৯৪

বুস্টার ডোজ নিলেন কূটনীতিকরা

নিউজ ডেস্ক:

প্রকাশিত: ১০ জানুয়ারি ২০২২  

ঢাকায় অবস্থানরত বিদেশি কূটনীতিকরা করোনা ভাইরাস প্রতিরোধক টিকার বুস্টার ডোজ নিয়েছেন। রোববার (৯ জানুয়ারি) কূটনীতিকদের টিকার বুস্টার দেওয়ার কর্মসূচি উদ্বোধন করা হয়। মহাখালীর শেখ রাসেল গ্যাস্ট্রোলিভার ইনস্টিটিউট হাসপাতালে বিদেশি কূটনীতিকদের টিকার বুস্টার ডোজ কর্মসূচির উদ্বোধন করেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন।

গত বছরের ১০ ফেব্রুয়ারি থেকে ঢাকার বিদেশি কূটনীতিকদের করোনা ভাইরাসের টিকা দেওয়া শুরু হয়। এর প্রায় এক বছর পর রোববার থেকে তারা বুস্টার ডোজ পাচ্ছেন। এদিন গ্যাস্ট্রোলিভার ইনস্টিটিউট হাসপাতালে বিদেশি কূটনীতিকদের মধ্যে ভারত, ব্রাজিল, ভ্যাটিকান সিটি, মালয়েশিয়া, ইউরোপীয় ইউনিয়নসহ বিভিন্ন দেশের রাষ্ট্রদূত ও হাইকমিশনার টিকা নেন।

গত ১৯ ডিসেম্বর মহাখালীতে বিসিপিএস অডিটোরিয়ামে কোভিড-১৯ টিকার বুস্টার ডোজের উদ্বোধন করা হয়। শুরুতে স্বাস্থ্যকর্মীদের পরীক্ষামূলকভাবে বুস্টার ডোজ দেওয়া হয়। এর ৯ দিনের মাথায় সাধারণ মানুষকে টিকার বুস্টার ডোজ দেওয়া শুরু হয়। বুস্টার ডোজ দেওয়া শুরুর ২১ দিনের মাথায় কূটনীতিকদের বুস্টার ডোজ দেওয়া শুরু হলো।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশে টিকা কর্মসূচিতে প্রথম দিকে কিছুটা সমস্যা থাকলেও তা বিভিন্ন বন্ধুরাষ্ট্র বাংলাদেশকে সহযোগিতার জন্য এগিয়ে আসে। আমাদের এখন প্রায় ৩১০ মিলিয়ন টিকা সরবরাহের তালিকায় আছে। ইতোমধ্যে ১২০ মিলিয়ন টিকা প্রদান করা হয়ে গেছে। আশা করছি ১২ বছরের প্রত্যেককে আমরা সময়মতো টিকা দিয়ে দিতে পারব।

তিনি বলেন, বিশ্বে করোনার নতুন ভ্যারিয়েন্ট ওমিক্রমন ছড়িয়ে পড়ার খবর পাওয়া যাচ্ছে। যুক্তরাষ্ট্র ও ভারতে প্রতিদিন বেশ বড় ধরনের সংক্রমণের খবর পাওয়া যাচ্ছে। আমরাও তাই স্বাস্থ্য সতর্কতার দিকে জোর দিচ্ছি। তবে সীমান্তসহ কোনো বন্দর বন্ধ করার মতো সিদ্ধান্ত আমরা নিচ্ছি না।

করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব বাড়লেও সরকার লকডাউনের কথা ভাবছে না বলে জানিয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আবদুল মোমেন। তিনি বলেন, করোনাভাইরাসের নতুন ভ্যারিয়েন্টে সংক্রমণ বেশি হলেও মৃত্যুহার কম। এটা চিন্তা করে আপাতত লকডাউনের কোনো ভাবনা নেই। কারণ লকডাউনে অর্থনীতির ওপর বড় চাপ পড়ে যায়। তবে স্বাস্থ্যবিধি পালনের বিষয়ে সর্বোচ্চ সতর্কতা নেওয়া হচ্ছে।

 কুষ্টিয়ার  বার্তা
 কুষ্টিয়ার  বার্তা
এই বিভাগের আরো খবর