মঙ্গলবার   ১৭ মে ২০২২   জ্যৈষ্ঠ ২ ১৪২৯   ১৫ শাওয়াল ১৪৪৩

 কুষ্টিয়ার  বার্তা
সর্বশেষ:
চুয়াডাঙ্গায় ভুয়া ডাক্তারকে দেড় লাখ টাকা জরিমানা পেঁয়াজের উৎপাদন বেড়েছে ২ লাখ ৭৯ হাজার টন এবার হজ কার্যক্রম পরিচালনার অনুমতি পেল ৭৮০ এজেন্সি আগামী দুই বছরের মধ্যে পৃথিবী হবে ডাটানির্ভর ডিজিটালের পরবর্তী পদক্ষেপ স্মার্ট বাংলাদেশ
১৩২১

মিরপুরে বর্তমান সরকারের আমলে শিক্ষা খাতে ব্যাপক উন্নয়ন ঘটেছে

সাগর খালী প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ২ ডিসেম্বর ২০১৮  

২০০৯ সালে মহাজোট সরকার রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায় আসার পর বিভিন্ন খাতে উন্নয়নের পাশাপাশি মাধ্যমিক শিক্ষার মান উন্নয়নে কুষ্টিয়ার মিরপুর উপজেলায় বর্তমান সরকারের আমলে মাধ্যমিক শিক্ষার ব্যাপক উন্নয়ন ঘটেছে।  

ছাত্র/ছাত্রীদের বিনা মূল্যে শিক্ষা সহায়ক উপকরন শতভাগ রঙিন বই, উপবৃত্তি প্রদান, স্কাউটস ড্রেস, বাইসাইকেল, ক্রীড়া সামগ্রী বিতরন করা হয়েছে, 

নতুন প্রজন্মকে প্রযুক্তি নির্ভর করে তোলার লক্ষে  বিদ্যালয়ের একাডেমীক ভবন নির্মান, প্রাচীর নির্মান, বেঞ্চ, ল্যাপটপ, মডেম, ইন্টারনেট কানেক্ট, পর্যাপ্ত শিক্ষক ও নৈশপ্রহরী নিয়োগ, সহ বিভিন্ন রকমের উন্নয়ন মূলক কর্মপরিকল্পনা গ্রহন করেছে।

এ উপজেলায় ৬৭ টি মাধ্যমিক, ১২ টি কলেজ, ১১ টি মাদ্রাসা, ১টি পলিটেকনিক কলেজ, ২টি কারিগরি কলেজে ৯৫৯ জন শিক্ষক ও ১,৩৮,৪১৬ জন ছাত্র/ছাত্রী অধ্যয়নরত রয়েছে। এদের মধ্যে ২৪,৪৭০ জন ছাত্র/ছাত্রী উপবৃত্তি পেয়ে থাকে। 
এ উপজেলায় আমলা সরকারি কলেজ ও মিরপুর সরকারি বালিকা বিদ্যালয় রয়েছে। তথ্য প্রযুক্তিতে জ্ঞান সমৃদ্ধ করার জন্য ১১টি বিদ্যালয়ে  কম্পিউটার ল্যব স্থাপন করা হয়েছে। এবং ৬৮ টি ক্লাস রুমে মালটিমিডিয়ার ব্যবস্থা করা হয়েছে। 
শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তরে বাস্তবায়নে সাগরখালী আর্দশ ডিগ্রী কলেজ, নবাব সিরাজউদ্দৌলা কলেজ, মিরপুর মাহমুদা চৌধুরী কলেজ, আমলা সরকারি কলেজ, হালসা ডিগ্রী কলেজ, পোড়াদহ ডিগ্রী কলেজ, ছাতিয়ান আব্দুর রাফেত বিশ্বাস কলেজ, নওদাপাড়া চৌদুয়ার মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়, ধুবইল মাধ্যমিক বিদ্যালয়, বুরাপাড়া মিটন মাধ্যমিক বিদ্যালয়, চিথলিয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়, পাহাড়পুর লক্ষীপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়, নিমতলা মাধ্যমিক বিদ্যালয়, ছাতিয়ান মাধ্যমিক বিদ্যালয়, পোড়দহ মাধ্যমিক বিদ্যালয়, বর্ডার গাড পাবলিক স্কুল এন্ড কলেজ, বলিদাপাড়া মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়, সুলতানপুর সিদ্দিকীয়া ফাজিল মাদ্রাসায় প্রায় ৫০ কোটি টাকা ব্যয়ে ৪ থেকে ৬ রুম বিশিষ্ট একাডেমীক ভবন নির্মান হয়েছে। 
এছাড়াও ধলসা পয়ারী মাদ্রাসা, ফুলবাড়ীয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়, শ্রীরামপুর মুজাদ্দিয়া মাদ্রাসা, সুলতানপুর সিদ্দিকীয়া মাদ্রাসা, কামিরহাট মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়সহ ৭টি বিদ্যালয়ে প্রায় ১২ কোটি টাকা ব্যয়ে একাডেমীক ভবন নির্মানের প্রক্রিয়ায় রয়েছে। 
জেলা পরিষদ থেকে মিরপুর মহিলা ডিগ্রী কলেজ, আমলা সদরপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়, পোড়দহ মাধ্যমিক বিদ্যালয়, হালসা আদর্শ কলেজে প্রায় ৫ কোটি টাকা ব্যয়ে অডিটরিয়াম নির্মানসহ ২২টি কলেজ ও মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে গেইট নির্মান, ৩৫টি বিদ্যালয় ও মাদ্রসায় ২ লক্ষ থেকে ১ লক্ষ টাকা ১ কালিন প্রায় ৬০ লক্ষ টাকার অনুদান, জিপিও ৫ প্রাপ্ত ছাত্র/ছাত্রীদের উপবৃত্তি প্রদান, মশান মাধ্যমিক বিদ্যালয় একাডেমীক ভবন নির্মান। 
উপজেলা পরিষদের জাইকা প্রকল্প থেকে হালসা মাধ্যমিক বিদ্যালয় ও বলিদাপাড়া মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ে ভবন নির্মান, ক্রীড়া শিক্ষকদের প্রশিক্ষণ গ্রহন, ক্রীড়া সামগ্রী, স্কাউটস ড্রেস, ড্রাম সেট, বেঞ্চ সরবহরাহ, প্রতিটি বিদ্যালয়, কলেজ ও মাদ্রসায় ইন্টানেট ও মডেম সরবহরাহ, ৩২টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ল্যাপটপ ও কম্পিউটার বিতরন করা হয়েছে। 
ছাত্র/ছাত্রীদের লেখাপাড়ার পাশাপাশি শরির গঠনের শীত কালীন ও গ্রীষ্মকালীন জাতীয় স্কুল ক্রীড়া প্রতিযোগীতার নিয়মিত আয়োজন করা হয়েছে। এছাড়াও প্রতিটি বিদ্যালয়ে বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগীতা অনুষ্ঠিত হয়েছে। মাধ্যমিক শিক্ষার মান উন্নয়ের উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসারকে সহযোগীতা করার জন্য বর্তমান সরকারের আমলে ১জন সহকারী মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার ও ১জন একাডেমীক সুপার ভাইজার নিয়োগ করা হয়েছে। প্রতিটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে বিদ্যুতায়ন করা হয়েছে। 

এ ব্যবাপরে কুষ্টিয়া শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তরের মিরপুর উপজেলার দায়িত্ব প্রাপ্ত উপ-সহকারী প্রকৌশলী দেলোয়ার হোসেন জানান, শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তরের বাস্তবায়নে বর্তমান সরকারের আমলে ৩৫টি বিদ্যালয়ে একাডেমীক ভবন নির্মান, ০২টি বিদ্যালয়ে প্রাচীন নির্মান, ১৫টি বিদ্যালয়ে ওয়াসব্লকের মাধ্যমে টয়লেট নির্মান সহ ব্যপক উন্নয়ন কর্মকান্ড হাতে নেওয়া হয়েছে। 

উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার জুলফিকার হায়দার জানান বর্তমান সরকার শিক্ষাকে সর্বচ্চো গুরুত্ব দিয়ে শিক্ষার মান উন্নয়নের নকল মুক্ত পরিক্ষা ব্যবস্থা, সৃজনশীল প্রশ্নপত্র তৈরি, একাডেমীক ভবন নির্মান, খেলাধুলার সার্বিক পৃষ্ঠপোষকতা, ডিজিটাল ল্যাবসহ নানাবিধ উন্নয়ন করে চলেছেন। উপজেলা নির্বাহী অফিসার এস এম জামাল আহমেদ জানান, বর্তমান সরকার শিক্ষা মান  উন্নয়নে শিক্ষকদের নিয়মিত প্রশিক্ষণ গ্রহন, শিক্ষা উপকরণ, একাডেমীক ভবন নির্মান, শিক্ষক ও নৈশপ্রহরী নিয়োগ দান করে কাজ করে যাচ্ছে।
উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক কামারুল আরেফিন বলেন, স্বাধীনতাকে অর্থবহ করতে শিক্ষা ব্যবস্থা উন্নয়নের বিকল্প নেই। তাই বর্তমান শেখ হাসিনার সরকার অগ্রাধিকার ভিত্তিতে শিক্ষার কল্যাণে কাজ করে ব্যপক উন্নয়ন করেছে। 
দলমতের উর্দ্ধে উঠে এ উপজেলার সকল বিদ্যালয়ে ল্যাপটপ, মডেম, ইন্টারনেট ব্যবস্থা করা হয়েছে। এছাড়া দারিদ্য ও মেধাবী ছাত্র/ছাত্রীদের মাঝে সরকারী ও ব্যক্তিগত ভাবে স্কুল ড্রেস, শিক্ষা উপকরণ, স্কাউটস ড্রেস, বেঞ্চ, হারমোনিয়াম, খেলাধুলার সামগ্রী, ড্রাম সেট বিতরণ করা হয়েছে। সরকারের ধারাবাহিকতা বর্জায় থাকলে দেশের সকল জনগণ বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়তে পারবে। 

 কুষ্টিয়ার  বার্তা
 কুষ্টিয়ার  বার্তা
এই বিভাগের আরো খবর