শনিবার   ০৩ ডিসেম্বর ২০২২   অগ্রাহায়ণ ১৮ ১৪২৯   ০৯ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

 কুষ্টিয়ার  বার্তা
সর্বশেষ:
বিজয়ের মাসকে ‘মুক্তিযোদ্ধা মাস’ ঘোষণার দাবি দেশে করোনার টিকার চতুর্থ ডোজ দেওয়া হবে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী পাঁচ বছরের মধ্যে সারাদেশে বিদ্যুতের তার মাটির নিচে যাবে সারা দেশে পুলিশের পক্ষকালব্যাপী বিশেষ অভিযান শুরু কুষ্টিয়ায় খেজুরের রস সংগ্রহে ব্যস্ত গাছিরা ঐতিহাসিক পার্বত্য শান্তি চুক্তির ২৫ বছর পূর্তি ঢাকায় অগ্নিসন্ত্রাসীদের বিশৃঙ্খলার লাইসেন্স দেয়া হবে না পদ্মা সেতুর সুফল পেতে শিল্পকারখানার প্রত্যাশা
৬০

ডিজিটাল প্রযুক্তির মহাসড়ক হিসেবে কাজ করেছে ইন্টারনেট

প্রকাশিত: ৭ অক্টোবর ২০২২  

ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার বলেছেন, ডিজিটাইজেসনের মাধ্যমে দেশের স্বাস্থ্য, শিক্ষা, শিল্প-বাণিজ্য ও সরকারী সেবাসহ প্রতিটি ক্ষেত্রে অভাবনীয় রূপান্তর হয়েছে। ইন্টারনেট রূপান্তরে ডিজিটাল প্রযুক্তির মহাসড়ক হিসেবে কাজ করেছে। ডিজিটাল প্রযুক্তির যথাযথ প্রয়োগ নিশ্চিত করার মাধ্যমে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে জনগণের দোরগোড়ায় উচ্চগতির ইন্টারনেট পৌঁছে দেওয়া হচ্ছে।

বৃহস্পতিবার রাজধানীর আগারগাঁওয়ে ওর্য়াল্ড ইনভেস্টর সপ্তাহ উপলক্ষে অ্যাসোসিয়েশন অব অ্যাসেট মেনেজমেন্ট কোম্পানিজ অ্যান্ড মিউচ্যুয়াল ফান্ডস’র উদ্যোগে আয়োজিত ‘রোল অব টেকনোলজি অ্যান্ড ইএসজি অ্যানালাইটিকস ইন সাসটেইনেবল ফিনান্সিং’ শীর্ষক অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন তিনি।

মন্ত্রী আরো বলেন, দ্রুত গতির ব্রডব্যান্ড সংযোগের পাশাপাশি দেশের শতকরা ৯৮ ভাগ এলাকায় মোবাইলে ফোর-জি সেবা পৌঁছে দেওয়া হয়েছে। একদেশ একরেটসহ ব্যান্ডউইদথের ব্যয় সাশ্রয়ী করা হয়েছে।

শিল্প বিপ্লবের যারা নেতৃত্ব দিয়েছিল তারাও এখন চ্যালেঞ্জর মুখোমুখি বলে উল্লেখ করে মোস্তাফা জব্বার বলেন, ডিজিটাল প্রযুক্তি পৃথিবীকে শুধু বদলেই দেবে না, অনেক ক্ষেত্রে উন্নত দেশ অনুন্নত আর অনুন্নত দেশ উন্নত হয়ে যেতে পারে।

তিনি বলেন, অতীতে তিনটি শিল্প বিপ্লবে শামিল না হয়েও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ডিজিটাল বাংলাদেশ কর্মসূচির হাত ধরে বাংলাদেশের বিপুল সংখ্যক তরুণ জনগোষ্ঠীকে কাজে লাগিয়ে পঞ্চম শিল্প-বিপ্লবে নেতৃত্ব দেবে। রোবটিক্স, আইওটি, বিগডাটাসহ নানা নতুন প্রযুক্তি প্রসারে আগামী দিনগুলোতে প্রচলিত ধারার শিল্প-বাণিজ্য পাল্টে যাবে। ব্যবসা-বাণিজ্যের প্রচলিত ধারার পরিবর্তনের জন্য ডিজিটাল প্রযুক্তিকে আলিঙ্গণ করতেই হবে।

দক্ষতা অর্জনের পথে কোনো আপোস নয় উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, সিকিউরিটি এক্সচেঞ্জ কমিশনকেও ডাটা হাব হিসেবে গড়ে তুলতে হবে।

বর্তমান প্রজন্মকে অত্যন্ত মেধাবী হিসেবে উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, এমন একটা সময় আসবে- যখন কৃত্রিম বুদ্বিমত্তা প্রযুক্তি ছাড়া শেয়ার ব্যবসা করার বিষয়টি মানুষ চিন্তাও করতে পারবে না। ডাটা অ্যানালাইসিস করে জানা যাবে যে- কোন শেয়ারের দাম কখন বাড়বে বা কমবে।

অ্যাসোসিয়েশন অব অ্যাসেট মেনেজমেন্ট কোম্পানিজ অ্যান্ড মিউচ্যুয়াল ফান্ডস’র সভাপতি ড. হাসান ইমামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিএসইসি কমিশনার ড. রুমানা ইসলাম, মো. আবদুল হালিম ও ড. মিজানুর রহমান প্রমূখ বক্তৃতা করেন। পরে মন্ত্রী স্টেপ ইএসজি এনালিটিকস উদ্বোধন করেন।

 কুষ্টিয়ার  বার্তা
 কুষ্টিয়ার  বার্তা
এই বিভাগের আরো খবর