বুধবার   ১০ আগস্ট ২০২২   শ্রাবণ ২৬ ১৪২৯   ১২ মুহররম ১৪৪৪

 কুষ্টিয়ার  বার্তা
৩৪

জীবননগরে খাদ্য গুদামে নিম্নমানের চাউল ভেজালের অভিযোগ

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ২১ জুন ২০২২  

চুয়াডাঙ্গার জীবননগর উপজেলা খাদ্য গুদামে ক্রয়কৃত চাউলের সাথে নিম্নমানের চাউল মিশিয়ে ভোক্তাদের মাঝে সরবরাহের অভিযোগ উঠেছে। সোমবার সকালে নিন্মমানের চাউল মেশানোর বিষয়টি স্থানীয়দের কাছে ধরা পড়ে।
 
সংশ্লিষ্টদের অভিযোগের জানা যায়, জীবননগর উপজেলা খাদ্য গুদাম কর্মকর্তা কাওসার হোসেন ও অফিস সহকারী রাকিব হোসেন যোগদানের পর থেকে নাইটগার্ড মাসুদ আলম এবং ফুড গোডাউন শ্রমিক সর্দার রমজান আলীর বিরুদ্ধে বিভিন্ন অনিয়মের অভিযোগ রয়েছে। তারা তালিকাভুক্ত মিলারদের কাছ থেকে নিম্নামানের চাউল ক্রয় করে তা ভোক্তাদের মাঝে সরবরাহ করে থাকেন।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক মিলারের অভিযোগ, খাদ্য গুদাম কর্মকর্তাকে প্রতি কেজি ভাল চাউলের অনুকুলে এক টাকা এবং নিম্নমানের খাওয়ার অনুপযোগী চাউলের অনুকুলে ৬-৭ টাকা হারে উৎকোচ দিতে হয়। এসব নিম্নমানের চাউল খাদ্য গুদাম থেকে সরকারী বিভিন্ন কর্মসুচিতে সরবরাহ করা হয়।

আরও জানা গেছে, নিম্নমানের চাউল ক্রয় করে গুদাম শ্রমিক রমজানের নেতৃত্বে অন্য কর্মরত শ্রমিকেরা ভাল চাউলের সাথে নিম্নমানের চাউল মিশিয়ে দেন। দীর্ঘ এক বছর তারা এ কাজটি করে আসছেন। সোমবার সকালে চাউল ভেজালের সময় বিষয়টি স্থানীয়দের চোখে পড়ে। তারা খাদ্য গুদাম কর্মকতা কাওসার হোসেনকে জানালে তিনি বলেন, ভিজিএফ’র চাউল তৈরী করা হচ্ছে। উপজেলা খাদ্য গুদামের তালিকাভুক্ত মিলাররা বিষয়টি নিয়ে প্রতিবাদ করলে সেই মিলারের কাছ থেকে চাউল ক্রয় করতে খাদ্য গুদাম কর্মকর্তা কাওসার হোসেনসহ সংশ্লিষ্টরা নানাভাবে হয়রানি করে থাকেন।

স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের অভিযোগ, বিভিন্ন প্রাকৃতিক দূর্যোগকালীন সময়, ঈদের বিশেষ ভিজিএফ, ভিজিডি, ওএমএস, টিআর, জিআরসহ বিভিন্ন কর্মসুচিতে অসহায়, হতদরিদ্র্র কিংবা ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানে সরকারী ভাবে উপজেলা খাদ্য গুদাম থেকে চাউল সরবরাহ করা হয়। যা অত্যন্ত নিন্মমানের ও খাওয়ার অনুপযোগী। ওজনেও কম দেয়া হয়। এ ব্যাপারে খাদ্য গুদাম কর্মকর্তাকে অভিযোগ করেও কোন কাজ হয় না।

উপজেলা খাদ্য গুদাম কর্মকর্তা কাওসার হোসেন বলেন, ভাল চাউলের সাথে নিন্মমানের চাউল ভেজাল করার অভিযোগ সত্য নয়। ভিজিডির চাউল সরবরাহের জন্য চাউল গড় করে রিপ্যাক করা হচ্ছিল।

জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক শহিদুল হক বলেন, নিন্মমানের চাউল ক্রয়ের বিষয়টি আমার জানা নেই। তবে ভিজিডির চাউল সরবরাহের জন্য যদি ৩০ কেজির প্যাকেট না থাকে, তাহলে রিপ্যাক করা যাবে। তবে, অভিযোগের বিষয়টি খতিয়ে দেখছি।
 

 কুষ্টিয়ার  বার্তা
 কুষ্টিয়ার  বার্তা
এই বিভাগের আরো খবর