বুধবার   ১০ আগস্ট ২০২২   শ্রাবণ ২৬ ১৪২৯   ১২ মুহররম ১৪৪৪

 কুষ্টিয়ার  বার্তা
৩০

বিশ্বকাপে ‘পাক-ভারত’ ম্যাচ নিয়ে আর ভবিষ্যদ্বাণী করবেন না হরভজন

প্রকাশিত: ২০ জুন ২০২২  

ভারত-পাকিস্তানের মধ্যে এখন আর কোনো দ্বিপাক্ষিক সিরিজ হয় না। হওয়ার সম্ভাবনা নেই নিকট ভবিষ্যতেও। তবে বিশ্বকাপের মঞ্চে এখন নিয়মিতই দেখা হচ্ছে দুই চিরপ্রতিদ্বন্দ্বীর। গত টি টোয়েন্টি বিশ্বকাপের পর এবারও গ্রুপ পর্বেই দেখা জানবে ভারত-পাকিস্তান ম্যাচ। যা নিয়ে গতবার ভবিষ্যতবাণী করলেও এবার আর ভবিষ্যতবাণী করতে আগ্রহী নন ভারতের সাবেক স্পিনার হরভজন সিং।

ক্রিকেটের অন্যতম আকর্ষনীয় ম্যাচ ধরা হয় ভারত-পাকিস্তান ম্যাচকে। দু'দেশের রাজনৈতিক বৈরিতা আলাদা মাত্রা দিয়েছে খেলার মাঠের লড়াইকেও। সেই লড়াই শুধু মাঠেই যে সীমাবদ্ধ থাকে তাও নয়। মাঠের বাহিরেও কথার লড়াই চলে জমজমাট।

যেমন গত টি টোয়েন্টি বিশ্বকাপে ভারত-পাকিস্তান ম্যাচের আগে ভারতের বিশ্বকাপজয়ী স্পিনার হরভজন সিং ভবিষ্যতবাণী করেন, ওই ম্যাচে স্রেফ উড়ে যাবে পাকিস্তান। তাই ম্যাচটি খেলার কোন প্রয়োজনীয়তাই দেখেন না তিনি।

আসলে ওয়ানডে কিংবা টি টোয়েন্টি বিশ্বকাপ -কোনটাতেই ভারতকে কখনো হারাতে পারেনি পাকিস্তান। এই অহংকার থেকেই মূলোত এমন বলেছিলেন এই স্পিনার। কিন্তু সবাইকে অবাক করে দেয় পাকিস্তান। বোলারদের পর ব্যাটারদের দাপুটে পারফরম্যান্সে ভারতের বিপক্ষে বিশ্বকাপের মঞ্চে প্রথম জয় পায় পাকিস্তান। সেই জয়ও আবার ১০ উইকেটের বড় ব্যবধানে।

অক্টোবরে অস্ট্রেলিয়ায় বসছে আরও একটি টি টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আসর। গতবারের মতো এবারও একই গ্রুপে পড়েছে দুই চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী দেশ। তবে এবারের ম্যাচ নিয়ে আর ভবিষ্যতবাণী করতে চান না ভাজ্জি। ২৩ অক্টোবরের সেই ম্যাচ যে ভারতের ১০ উইকেটে হারের বর্ষপূর্তির দিনেই। এমসিজিতে এবারের ম্যাচ সামনে রেখে কথার লড়াই অবশ্য শুরু হয়ে গেছে এরই মধ্যে। গতবারের ম্যাচে সম্ভাব্য বিজয়ী হিসেবে সবাই ভারতকেই ধরে নিয়েছিল।

আত্মবিশ্বাসী হরভজন তাই স্কাই স্পোর্টসকে বলেছিলেন, 'আমি শোয়েব আখতারকে বলেছি, পাকিস্তানের এ ম্যাচ খেলার দরকার নেই; ওদের উচিত ম্যাচটা ওয়াকওভার দেওয়া। তোমরা খেলবে, আবার হারবে এবং আবার তোমাদের মন খারাপ হবে। আমাদের দল পরিপূর্ণ, খুব শক্তিশালী এবং তোমাদের ছেলেদের খুব সহজে হারাবে।'

সে ম্যাচের আগে শোয়েব নিজেও হরভজনের মতোই ভাবছিলেন। তাই খুব একটা প্রতিবাদের সুরও তোলেননি। কিন্তু ম্যাচে ভারতকে নিয়ে রীতিমত ছেলেখেলা করেছে বাবর-রিজওয়ানরা। পাক বোলারদের তোপে ভারতের ব্যাটাররা নাকানিচুবানি খাওয়ার পর ব্যাট হাতে রিজওয়ান ও বাবর মিলে শেষ করে এসেছেন ম্যাচ। ম্যাচের শেষে পাকিস্তানের সমর্থকরা তাই সুযোগ বুঝে খোঁচাটা ফেরত দিয়েছে হরভজনকে।

সেদিনের ম্যাচ থেকে শিক্ষা নিয়ে এবার তাই আর ভবিষ্যদ্বাণী করছেন না ভাজ্জি। শোয়েব আখতারের সঙ্গে ফের আলাপচারতায় বলেন, 'আমাদের সামনে আরেকটি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ। এই বছর আমি কিছুই বলছি না এবং ভারত ও পাকিস্তানের মধ্যে কে জিতবে, এটা নিয়েও বলতে চাই না। মউকা মউকা বলেন কিংবা অন্যকিছু, দেখি না কী হয়। কারণ, গতবার বলার পর খুব বাজে কিছু হয়েছিল।'
 
হরভজনের সঙ্গে একমত শোয়েবও। হরভজনের শিক্ষা হওয়া দেখে হয়তো মনে মনে হসাছেন এই স্পিডস্টার।

 কুষ্টিয়ার  বার্তা
 কুষ্টিয়ার  বার্তা
এই বিভাগের আরো খবর