সোমবার   ২০ সেপ্টেম্বর ২০২১   আশ্বিন ৪ ১৪২৮   ১২ সফর ১৪৪৩

 কুষ্টিয়ার  বার্তা
সর্বশেষ:
জাতিসংঘে প্রধানমন্ত্রীর ভাষণে গুরুত্ব পাবে যে ৬টি বিষয় শেখ হাসিনার নেতৃত্ব ও সম্পর্ককে গুরুত্ব দিয়ে আসছে সৌদি সরকার বাংলাদেশের সুগন্ধি চাল বিশ্বময় সুবাস ছড়াচ্ছে মোংলা বন্দরে নির্মিত হচ্ছে আরও ৬টি জেটি
৫৭

মেহেরপুরে রাজনগর গ্রামবাসীর জন্য সৌদিপ্রবাসীর অ্যাম্বুলেন্স উপহার

ডেস্ক রিপোর্ট

প্রকাশিত: ২৩ জুলাই ২০২১  

গ্রামের রোগীদের দ্রুত চিকিৎসা সেবা দিতে অতি প্রয়োজন হলো যানবাহন। কিন্তু প্রত্যন্ত অঞ্চলে এ সেবা পাওয়াটা একটু দুষ্কর হয়। তাই নিজের গ্রামের বাসিন্দাদের কথা চিন্তা করে একটি অ্যাম্বুলেন্সই উপহার দিয়ে মানবতার অনন্য নজির গড়েছেন মেহেরপুর জেলা সদর উপজেলার আমঝুপি ইউনিয়নের রাজনগর গ্রামের আবদুল হকের ছেলে আমিনুল ইসলাম। 

শুধু করোনা রোগীই নয়, গ্রামের যেকোনো রোগীই হাসপাতালে যেতে বিনামূল্যে ব্যবহার করবে প্রবাসীর দেওয়া উপহারের এই অ্যাম্বুলেন্স। বৃহস্পতিবার (২২ জুলাই) বিকেলে গ্রামের মাতবরদের হাতে অ্যাম্বুলেন্সের চাবি ও অ্যাম্বুলেন্স হস্তান্তর করেন। তাছাড়া প্রতি মাসের জ্বালানি ও চালকের বেতনও প্রদান করবেন মানবিক ওই প্রবাসী। 

তার দেয়া অ্যাম্বুলেন্স পেয়ে খুশি এলাকার মানুষ। এমন মানবিক উপহার সংকট মুহূর্তে মানুষের জীবন বাঁচাতে সহায়ক হবে বলে মনে করছেন এলাকাবাসী।

মোবাইল ফোনের মাধ্যমে সৌদিপ্রবাসী আমিনুল ইসলাম  বলেন, মেহেরপুর সদর থেকে আমাদের গ্রামের দূরত্ব প্রায় ১০ কিলোমিটার। কোনো মানুষ অসুস্থ হলে তাকে হাসপাতালে নিতে নানা বিড়ম্বনায় পড়তে হয়। অটোভ্যানে যেতে অনেক সময় লাগে। দ্রুত হাসপাতালে না পৌঁছাতে পেরে অনেক রোগীর পথেই মৃত্যু হয়। গ্রাম থেকে দূরের কোনো হাসপাতালে যেতে হলে ভাড়াটে মাইক্রো বা সরকারি অ্যাম্বুলেন্স নিতে গুনতে হয় মোটা অঙ্কের টাকা। তাও আবার সঠিক সময়ে পাওয়া মুশকিল। আমি গ্রামে বড় হয়েছি। গ্রামের মানুষ হিসেবে মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছি। 

গ্রামের যুবক মাসুদ রানা বলেন, আমাদের গ্রামের মানুষ আমিনুল ইসলাম বর্তমান সৌদিপ্রবাসী। অনেক বছর আগে তিনি সৌদি আরবে গিয়ে সাবলম্বী হন। তার কাছে আমরা দাবি করলে তিনি এ দুর্যোগ মুহূর্তে একটি নতুন অ্যাম্বুলেন্স উপহার দিলেন। তার এ উপহার সময় উপযোগী হিসেবে এলাকার সব মানুষের দুঃসময়ে উপকারে আসবে।

বঙ্গবন্ধু মেডিকেল কলেজের চিকিৎসক ডা. সজিব উদ্দিন সাধিন বলেন, সঠিক সময়ে চিকিৎসা না পেয়ে অনেক মানুষই প্রতিনিয়ত মারা যাচ্ছে, বিশেষ করে স্ট্রোকজনিত। রোগীর ক্ষেত্রে সময়টা খুবই গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। রোগী পরিবহনে আমিনুল ইসলাম গ্রামবাসীদর জন্য ভালো একটি কাজ করছেন, যা এলাকার সব মানুষের মানবিক কাজে আসবে। এলাকার প্রত্যেক বিত্ত্ববানকে এভাবেই মানুষের পাশে দাঁড়ানো উচিত বলেও মন্তব্য করেন এ চিকিৎসক।

 কুষ্টিয়ার  বার্তা
 কুষ্টিয়ার  বার্তা
এই বিভাগের আরো খবর