রোববার   ২৯ জানুয়ারি ২০২৩   মাঘ ১৬ ১৪২৯   ০৭ রজব ১৪৪৪

 কুষ্টিয়ার  বার্তা
সর্বশেষ:
গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়ে ফাইনাল রাউন্ডে ব্রাজিল
১৪৯

জঙ্গিবাদের বিশ্বস্ত ঠিকানা বিএনপি: ওবায়দুল কাদের

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ৩ ডিসেম্বর ২০২২  

বিএনপিকে জঙ্গিবাদের পৃষ্ঠপোষক বলেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। 

শুক্রবার নোয়াখালীর এক অনুষ্ঠানে ভার্চুয়ালি যুক্ত হয়ে তিনি বলেন, “বিএনপির আন্দোলন মানে আগুন সন্ত্রাস। আগুন সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদের পৃষ্ঠপোষক, সাম্প্রদায়িকতার বিশ্বস্ত ঠিকানা হচ্ছে বিএনপি।” 

সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেন, “কয়েকদিন আগে কাঁচপুরে ঢাকা-সিলেট সড়কে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভিত্তিপ্রস্তর ফলক পুড়িয়ে ফেলা হয়েছে। পরশু রাতে বিআরটিসির দ্বিতল বাস মতিঝিলে ভয়াবহভাবে পুড়িয়ে ফেলা হয়েছে। বিএনপি জানান দিচ্ছে আন্দোলনে সহিংসতার প্রথা যুক্ত করবে।” 

বিকালে নিজ নির্বাচনী এলাকা নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জের বসুরহাট এ এইচ সি সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে উপজেলা আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে ভার্চুয়ালি যুক্ত হয়ে তিনি প্রধান অতিথির বক্তৃতা দেন।     

ওবায়দুল কাদের বলেন, “একটা ভিডিও ক্লিপ পেয়েছি। সেই ভিডিওতে তারেক রহমান বলে – হাসিনা পালাবে, মন্ত্রীরা পালাবে। সে যে পালিয়ে আছে তা কেন বলে না? ২০০৮ থেকে সে পলাতক। সে শেখ হাসিনাও বলে না; কত বড় বেয়াদবি। আমরা বেগম খালেদা জিয়া বলি। সম্মানের সাথে নেত্রীর নামটাও উচ্চারণ করে না। ১৯ বছর যিনি ক্ষমতায় আছেন।” 

বিএনপির ১০ ডিসেম্বরের সমাবেশ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, “যেখানে পাকহানাদার বাহিনী আত্মসমর্পণ করেছে।  দুনিয়ার ইতিহাসে অন্যতম সেরা ভাষণ, স্বাধীনতার ডাক, সেই স্মৃতি যেখানে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে তাদের ভয় কেন। তারা যে মনে মনে চেতনায় হৃদয়ে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ধারণ করেন না এটাই তার প্রমাণ।”  

ওবায়দুল কাদের আরও বলেন, “শেখ হাসিনাকে ২১ অগাস্ট মারতে চেয়েছেন। জিয়উর রহমান মেরেছে বঙ্গবন্ধুকে। মুফতি হান্নান বলেছে হাওয়া ভবন থেকে তার নির্দেশ পেয়ে গ্রেনেড হামলা করেছে। তারেক রহমানের লোকেরা এখানে আমাদেরকে ভয় দেখান তারেক রহমান আসবে বীরের মত। কাপুরুষের মত যে পালিয়ে গেছে, সে বীরের মত আসবে। এত বছরে যা ঘটল না, এখন ঘটবে সেটা বিশ্বাস হয় না।”    

এ সময় সেতুমন্ত্রী কোম্পানীগঞ্জের আওয়ামী লীগের দুই গ্রুপের মধ্যে দ্বন্দ্বের জের ধরে ঘটে যাওয়া সংঘাতে ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ী ও এলাকাবাসীর কাছে ক্ষমা প্রার্থনা করেন।    

এর আগে বিকাল সাড়ে ৩টার দিকে জাতীয় পতাকা ও দলীয় পতাকা উত্তোলনের মধ্য দিয়ে সম্মেলনের উদ্বোধন করেন জেলা আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক এ এইচ এম খায়রুল আনম সেলিম। 

সম্মেলনে অন্যান্যের মধ্যে আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন, এস এম কামাল হোসেন, কৃষি ও সমবায় বিষয়ক সম্পাদক ফরিদুন্নাহার লাইলী, ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ সম্পাদক সুজিত রায় নন্দী, জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম-আহ্বায়ক শিহাব উদ্দিন শাহীন, সহিদ উল্লাহ খাঁন সোহেল ও কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ সাহাব উদ্দিন বক্তব্য দেন। 

সম্মেলনের দ্বিতীয় অধিবেশনে ওবায়দুল কাদেরের ছোট ভাই বসুরহাট পৌরসভার মেয়র আব্দুল কাদের মির্জাকে সভাপতি এবং সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান বাদলকে কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ঘোষণা করা হয়।

 কুষ্টিয়ার  বার্তা
 কুষ্টিয়ার  বার্তা
এই বিভাগের আরো খবর