সোমবার   ২৫ মে ২০২০   জ্যৈষ্ঠ ১১ ১৪২৭   ০২ শাওয়াল ১৪৪১

 কুষ্টিয়ার  বার্তা

শেখ হাসিনার নেতৃত্বের প্রশংসায় যুক্তরাষ্ট্র

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ২২ মে ২০২০  

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বের প্রশংসা করেছে যুক্তরাষ্ট্র। এর পাশাপাশি দেশটি বাংলাদেশকে অগ্রসরমান উদ্যোক্তা সমাজ হিসেবে উল্লেখ করে বলেছে, বাংলাদেশের সামাজিক সূচকগুলো সত্যিকারের সাফল্যের গল্প। বিশেষ করে, নারীর অগ্রযাত্রায় শেখ হাসিনার নেতৃত্বের ভূমিকাকে যুক্তরাষ্ট্র উল্লেখযোগ্য বলে মনে করে। 

যুক্তরাষ্ট্রের দক্ষিণ ও মধ্য এশিয়াবিষয়ক ভারপ্রাপ্ত অ্যাসিস্ট্যান্ট সেক্রেটারি অ্যালিস জে. ওয়েলস গত বুধবার বিশেষ ব্রিফিংয়ে বলেন, ‘গত তিন বছরে যুক্তরাষ্ট্র-বাংলাদেশ সম্পর্কের ক্ষেত্রে উল্লেখযোগ্য অগ্রগতি হয়েছে।’

ওয়েলস বলেন, রোহিঙ্গা সংকটে বাংলাদেশের জনগণ ও সরকারের সাড়া প্রদান এবং আন্তর্জাতিক মানবিক সহায়তা অংশীদারদের ভূমিকা যথার্থভাবেই প্রশংসিত হয়েছে। রোহিঙ্গা সংকটে সহায়তা প্রদান কার্যক্রমে একক বৃহত্তম দেশ যুক্তরাষ্ট্র। তবে বাংলাদেশ রোহিঙ্গাদের আশ্রয়দাতার চেয়েও অনেক বেশি করেছে। তিনি বলেন, গত দশকজুড়ে বাংলাদেশ চমকপ্রদ অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি অর্জন করেছে।

যুক্তরাষ্ট্রের দক্ষিণ ও মধ্য এশিয়াবিষয়ক ভারপ্রাপ্ত অ্যাসিস্ট্যান্ট সেক্রেটারি বলেন, ‘বাংলাদেশ ভারত মহাসাগর অঞ্চলে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে। আমাদের নিরাপত্তা সহযোগিতা জোরালো হয়েছে।’ তিনি বলেন, শাসনব্যবস্থা ও গণতান্ত্রিক প্রতিষ্ঠানগুলোর প্রতি বাংলাদেশ অঙ্গীকার পুনর্ব্যক্ত করলে অভিন্ন মূল্যবোধের ওপর প্রতিষ্ঠিত দ্বিপক্ষীয় সম্পর্ক আরো জোরদারে সহায়ক হবে।

অ্যালিস জে. ওয়েলস বলেন, করোনাভাইরাস মহামারিতে ক্ষতিগ্রস্ত অর্থনীতি পুনর্গঠনে যুক্তরাষ্ট্র এই অঞ্চলের দেশগুলোর ‘বিশ্বাসযোগ্য অংশীদার’ হবে। তিনি বলেন, যুক্তরাষ্ট্র এরই মধ্যে এই অঞ্চলে ৯ কোটি ৬০ লাখ ডলার সহায়তা দিয়েছে। 

করোনা মহামারির কারণে তৈরি পোশাক খাতের সমস্যাকে দুর্ভাগ্যজনক ও সাময়িক বলে উল্লেখ করেন অ্যালিস জে. ওয়েলস। তিনি বলেন, ‘আমরা এরই মধ্যে এটি সমাধানের চেষ্টা করছি। বাংলাদেশি কারখানাগুলো যখন নতুন করে প্রস্তুত হচ্ছে ও বাজার খুঁজছে তখন আমরা গুরুত্বপূর্ণ চিকিৎসা সরঞ্জাম প্রস্তুতকারী বাংলাদেশিদের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের ভোক্তাদের সংযোগ ঘটিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করছি। 

তিনি বলেন, যুক্তরাষ্ট্র বাংলাদেশের অর্থনীতির জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। বাণিজ্য ও বিনিয়োগ সম্পর্ক জোরদারে আমরা সব ধরনের সুযোগ খোঁজা অব্যাহত রাখব।

বর্তমান সময়কে বৈশ্বিক সরবরাহ শৃঙ্খল বৈচিত্রকরণের উপযুক্ত মুহূর্ত বলে উল্লেখ করে অ্যালিস জে. ওয়েলস বলেন, এটি বাংলাদেশের জন্যও সুযোগ সৃষ্টি করতে পারে।

 কুষ্টিয়ার  বার্তা
 কুষ্টিয়ার  বার্তা
এই বিভাগের আরো খবর