শুক্রবার   ২২ নভেম্বর ২০১৯   অগ্রাহায়ণ ৭ ১৪২৬   ২৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪১

সর্বশেষ:
স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে পরিবহন নেতাদের বৈঠক আজ নেদারল্যান্ডসের রাজধানীতে প্রথমবারের মতো মাইকে আজান অ্যাসাঞ্জের বিরুদ্ধে ধর্ষণ মামলার তদন্ত বন্ধ করছে সুইডেন দেশে ফিরেছেন প্রধানমন্ত্রী

মেহেরপুরে তিনটি গুরুত্বপূর্ণ সড়ক সংস্কার কাজ বন্ধ!

নিজস্ব প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ৩১ অক্টোবর ২০১৯  

একটি মামলার কারণে মেহেরপুরে তিনটি গুরুত্বপূর্ণ সড়ক সংস্কার কাজ বন্ধ রয়েছে। সড়কগুলো চলাচলের অনুপযোগী হওয়ায় ওই এলাকার লক্ষাধিক মানুষ চরম দুর্ভোগে পড়েছে। এতে প্রতিনিয়ত সড়কে ঘটছে ছোট-বড় দুর্ঘটনা। ফলে পঙ্গুত্ববরণ করতে হচ্ছে অনেককেই। 

এলাকাবাসীর দাবি, মামলাটি দ্রুত নিষ্পত্তি করে রাস্তা তিনটি সংস্কার করে চলাচলের উপযোগী করা হোক। এলজিইডির টেন্ডার প্রক্রিয়ায় অস্বচ্ছতা ও ওয়ার্ক অর্ডারে গরমিলের কারণে ঠিকাদার মামলা করায় ওই কাজ বন্ধ হয়ে যায়।

কাজিপুর এলাকার জেলা পরিষদের সদস্য মো. মুনসুর আলী জানান, সড়ক তিনটি ভেঙে যাওয়ায় মেরামতের জন্য টেন্ডার ও টাকা বরাদ্দ হওয়ার পরও কাজ না হওয়া দুঃখজনক। এই এলাকা থেকে প্রতিদিন ৫০ থেকে ৬০টি সবজি বোঝাই ট্রাক দেশের বিভিন্ন জেলার কাঁচাবাজারে রপ্তানি হয়। ঢাকা যাওয়ার একমাত্র পথও ওই সড়কগুলো। শিক্ষার্থীরা বিদ্যালয়ে যায় কষ্ট করে। ভাঙাচোরা রাস্তার কারণে প্রায় সময় দুর্ঘটনা ঘটে থাকে।

কাজিপুর ইউপি চেয়ারম্যান রাহাতুল্লাহ জানান, ঠিকাদারের মামলার কারণে মেহেরপুরের গাংনী উপজেলার বামুন্দী-কাজিপুর, কাজিপুর-নওদাপাড়া ও আকুবপুর-মোহাম্মদপুর হয়ে গোয়ালগ্রাম পর্যন্ত সংস্কার কাজের টেন্ডার হয়েও কাজ বন্ধ রয়েছে। অথচ সড়ক দিয়ে চলতে গিয়ে প্রতিনিয়ত ঘটছে দুর্ঘটনা। তিনটি সড়কেই ছোট-বড় অসংখ্য গর্তের সৃষ্টি হয়েছে। সড়কগুলো খানাখন্দে পরিণত হওয়ায় প্রতিনিয়ত বাস, ট্রাক, ইজিবাইক ও মোটরসাইকেল উল্টে পঙ্গুত্ববরণ করেছে অনেকেই। ভাঙাচোরা রাস্তা দিয়ে চলাচল করতে গিয়ে যানবাহন বিকল হয়ে পড়ছে। বর্তমানে ওই রাস্তা চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়ায় এ এলাকায় ব্যবসা-বাণিজ্যে ধ্বস নেমেছে।

ঠিকাদার চুয়াডাঙ্গা জেলার জাকা মোল্লা জানান, লটারি করে টেন্ডার প্রক্রিয়ায় অস্বচ্ছতা ও ওয়ার্ক অর্ডার প্রদানে গরমিলের কারণে আদালতে মামলা করা হয়েছে। আশা করছি মামলাটি আগামী সপ্তাহে শেষ হয়ে যাবে। শিগগিরই ভালো খবর দিতে পারব। তবে এলজিইডি অফিসের টেন্ডার, লটারি ও ওয়ার্ক অর্ডারে স্বচ্ছতা আনা জরুরি। 

এ ব্যাপারে এলজিইডির গাংনী উপজেলা নির্বাহী প্রকৌশলী মুজিবর রহমান চৌধুরী জানান, এক বছর আগে বামুন্দী-কাজিপুর সড়ক এক কোটি ৫ লাখ, মোহাম্মদপুর-গোয়ালগ্রাম সড়ক এক কোটি ১৩ লাখ ও নওদাপাড়া-কাজিপুর সড়ক সংস্কারে প্রায় তিন কোটি টাকার টেন্ডার হওয়ার পর আদালতে মামলা হওয়ায় ওই সড়কগুলোর সংস্কার কাজ বন্ধ হয়ে যায়। 

যতটুকু সংবাদ পেয়েছি, মামলাটি এখন শেষের দিকে। আদেশ পেলে আদালতের নির্দেশ মতো ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এ বিষয়ে জানতে চেয়ে এলজিইডি মেহেরপুরের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. আসাদুজ্জামানের সঙ্গে ফোনে বারবার যোগাযোগ করার চেষ্টা করলেও তিনি ফোন রিসিভ করেননি।

মেহেরপুর-২ (গাংনী) আসনের সংসদ সদস্য মোহাম্মদ সাহিদুজ্জামান খোকন জানান, যেসব কারণে আদালতে মামলা হয়েছে, তা নিরসনে এলজিইডি ও ঠিকাদারের সঙ্গে কথা বলেছি। তাদের উদ্যোগী হয়ে সমস্যার সমাধান করতে বলা হয়েছে। তারা উভয়ে আলোচনার মাধ্যমে মামলাটি দ্রত নিষ্পত্তি করে রাস্তা সংস্কার শুরু করবে বলে আশ্বাস দিয়েছেন।

 কুষ্টিয়ার  বার্তা
 কুষ্টিয়ার  বার্তা
এই বিভাগের আরো খবর