বুধবার   ০১ ডিসেম্বর ২০২১   অগ্রাহায়ণ ১৭ ১৪২৮   ২৫ রবিউস সানি ১৪৪৩

 কুষ্টিয়ার  বার্তা
সর্বশেষ:
রূপান্তরে বাংলাদেশ উত্তরণে বাংলাদেশ দুটি বৃহৎ উন্নয়ন প্রকল্পে ২৩ হাজার কোটি টাকা ঋণ দিচ্ছে জাপান শতবর্ষ উদযাপনে বর্ণিল সাজে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় যশোরে আনসার-ভিডিপি’র পতাকা র‌্যালি করোনা বাড়লে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান আবার বন্ধ হবে: প্রধানমন্ত্রী ভারত-পাকিস্তান থেকে নানা সূচকে এগিয়ে বাংলাদেশ
১২৬

বিয়ে দিলো না বাবা, গাছে ঝুলছে ছেলের মরদেহ

ডেস্ক রিপোর্ট

প্রকাশিত: ২৭ অক্টোবর ২০২১  

বিয়ের জন্য জোর করেছিলো ছেলে। বাবার সম্মতিও দিয়েছিল। কিন্তু মেয়ে পছন্দ হওয়ার পর এক বছর পর বিয়ের দিনক্ষণ চূড়ান্ত হয়। এতেই ঝরে গেলো ইমন আলীর (২০) জীবন।

ঘটনাটি ঘটেছে কুষ্টিয়ার কুমারখালীতে। বাবা বিয়ে দিতে আপত্তি করায় গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে ছেলে। 

মঙ্গলবার (২৬ অক্টোবর) রাতে উপজেলার বাগুলাট ইউনিয়নের শালঘর মধুয়া কাচারিপাড়া গ্রামে গাছের সঙ্গে ঝুলন্ত অবস্থায় তার লাশ উদ্ধার করা হয়। কুমারখালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কামরুজ্জামান তালুকদার এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। 

মৃত যুবক উপজেলার বাগুলাট ইউনিয়নের শালঘর মধুয়া কাচারিপাড়া গ্রামের জামছের আলীর ছেলে। এক এলাকাবাসী জানায়, ঢাকায় আইসক্রিম কারখানায় কাজ করতেন ইমন। করোনাকালে বাড়িতে চলে আসে। কিছুদিন ধরে বিয়ে দেয়ার জন্য বাবাকে বলছিলেন তিনি। পার্শ্ববর্তী গ্রামে মেয়ে দেখে বিয়ের কথা পাকাপাকি করা হয়। আগামী বছর বিয়ের দিন ঠিক করে তার বাবা। কিন্তু এখনই বিয়ে দিতে হবে- এমন চাপ সৃষ্টি করলে তার বাবা অসম্মতি জানান। এতে অভিমান করে মঙ্গলবার দিবাগত রাতে বাড়ির পাশের বাগানে গাছের সঙ্গে রশি দিয়ে গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করেন ইমন। 

বুধবার সকালে প্রতিবেশী এক নারী বাগানে গেলে ইমনকে গাছের সঙ্গে ঝুলন্ত অবস্থায় দেখে চিৎকার করেন। পরে এলাকাবাসী খবর দিলে পুলিশ মরদেহ উদ্ধার করে।

ওসি জানান, বিয়ে না দেয়ায় ছেলে আত্মহত্যা করেছে এলাকাবাসী এমনই তথ্য দিয়েছে। তবে লাশের ময়নাতদন্তের পর প্রকৃত ঘটনা জানা যাবে। 

এ বিষয়ে কুমারখালী থানায় একটি অপমৃত্যুর মামলা হয়েছে। মরদেহ কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।

 কুষ্টিয়ার  বার্তা
 কুষ্টিয়ার  বার্তা
এই বিভাগের আরো খবর