বুধবার   ১৩ নভেম্বর ২০১৯   কার্তিক ২৮ ১৪২৬   ১৫ রবিউল আউয়াল ১৪৪১

সর্বশেষ:
সারাদেশে নৌযান চলাচল বন্ধ ঘোষণা ১৩ জেলা প্রশাসনের সব কর্মকর্তা-কর্মচারীর ছুটি বাতিল ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’ : মোংলা-পায়রা বন্দরে ১০ নম্বর মহাবিপদ সংকেত ফুটবল নিয়ে ব্যস্ত সাকিব আল হাসান ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’র কারণে আজ জেএসসি-জেডিসি পরীক্ষা স্থগিত শ্রমিকলীগের সম্মেলন উদ্বোধন করলেন শেখ হাসিনা

বাচতে চায় দৌলতপুরের ফরহাদ

নিজস্ব প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ৪ নভেম্বর ২০১৯  

কুষ্টিয়ার দৌলতপুর উপজেলার শেরপুর গ্রামের ক্যান্সার আক্রান্ত কলেজ ছাত্র ফরহাদ আহমেদ পিয়াস বাঁচতে চায়। সে ওই গ্রামের মোমিনুল হকের একমাত্র ছেলে।

তার পিতা মিরপুর মাহমুদা চৌধুরী ডিগ্রী কলেজের চতুর্থ শ্রেণীর একজন কর্মচারী। বর্তমানে অর্থাভাবে বিনা চিকিৎসায় ধীরে ধীরে নিভে যাচ্ছে কুষ্টিয়া পলিটেকনিক ইনিষ্টিটিউটের ২য় বর্ষে শিক্ষার্থী পিয়াসের (১৯) জীবন প্রদীপ। 

জানা যায়, ফরহাদ মরণ ব্যাধি ক্যান্সারের সঙ্গে যুদ্ধ করছেন এক বছর। টাকার অভাবে অনেকটাই স্তিমিত হয়ে পড়েছে তার চিকিৎসা। ঠিক মত চিকিৎসা করাতে পারলে ভালো হয়ে উঠবে ফরহাদ আহমেদ পিয়াস এমনটিই জানিয়েছেন চিকিৎসকরা।

বর্তমানে সে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বোন ম্যারো বিভাগে চিকিৎসাধীন রয়েছে। ক্যান্সারে আক্রান্ত পিয়াসের চোখে মুখে শুধু বাঁচার আকুতি। 

পিয়াসের বাবা মোমিনুল হক জানান, প্রায় ১ বছর পূর্বে রক্তসহ বিভিন্ন রোগের পরীক্ষা-নিরীক্ষা শেষে তার শরীরের ব্লাড ক্যান্সারের আলামত পাওয়া যায় বলে চিকিৎসকরা নিশ্চিত করেন। দেশের বিভিন্ন স্থানে চিকিৎসা করতে ইতিমধ্যে প্রায় ১০ লক্ষ টাকা ব্যয় হয়ে গেছে। এখন বোন ম্যারো প্রতিস্থাপনের জন্য ৬ থেকে ৭ লক্ষ টাকা প্রয়োজন। আমার স্বল্প আয়ে একমাত্র সন্তানের চিকিৎসা ব্যয় বহন করা সম্ভব নয়। তাই সন্তানের জীবন বাঁচাতে বৃত্তবান মানুষের সহযোগিতা কামনা করছি।

সাহায্য পাঠানোর ঠিকানা মোঃ মোমিনুল হক, সঞ্চয়ী হিসাব নং ৩০১৮৯০১০১৮১০৭, সোনালী ব্যাংক লিমিটেড, মিরপুর শাখা, কুষ্টিয়া। বিকাশ নম্বর ০১৮৭১০৪৯০১৩। 

উল্লেখ্য তার বড় মেয়ে মমতাজ আইরিন মিম ২০১৫ সালে ক্যান্সার আক্রান্ত হয়ে মারা যায়।

 কুষ্টিয়ার  বার্তা
 কুষ্টিয়ার  বার্তা
এই বিভাগের আরো খবর