মঙ্গলবার   ১৮ জানুয়ারি ২০২২   মাঘ ৪ ১৪২৮   ১৩ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

 কুষ্টিয়ার  বার্তা
সর্বশেষ:
পোশাক রপ্তানি: বড় বাজারে বড় প্রবৃদ্ধি আশা জাগাচ্ছে আরও ৯৬ লাখ ফাইজারের টিকা এলো যুক্তরাষ্ট্র থেকে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধের তথ্য গুজব: শিক্ষা মন্ত্রণালয় জীবননগরে কৃষি কাজে জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে ‘রাইস ট্রান্সপ্লান্টার’ গড়াই নদী খনন প্রকল্পে সুফল পাচ্ছে কুষ্টিয়ার বাসিন্দারা চুয়াডাঙ্গায় দুর্বৃত্তরা কেটে ফেলেছে ২৬টি কমলাগাছ মেহেরপুরে ভ্রাম্যমাণ আদালতে দুজনের কারাদণ্ড
৯০

প্রতিদিন ওটস খেলে কমবে হৃদরোগ ও স্ট্রোকের আশঙ্কা

প্রকাশিত: ২২ ডিসেম্বর ২০২১  

সুস্থতা সবারই কাম্য। কিন্তু তারপরও নিজেদের অসাবধানতার কারণে অনেকেই অকালে প্রাণ হারান। এর মধ্যে হৃদরোগ ও স্ট্রোক করে আমাদের দেশে প্রতি বছরই অনেক মানুষ মারা যান। শুধু তাই নয়, গোটা পৃথিবীতে সবচেয়ে বেশি সংখ্যক মানুষ মারা যান হৃদরোগ ও স্ট্রোকে আক্রান্ত হয়ে। আর এর অন্যতম প্রধান কারণ রক্তনালীর অন্তঃ প্রাচীরে কোলেস্টেরল ও অন্যান্য স্নেহ পদার্থের সঞ্চয়।

বিজ্ঞানের ভাষায় একে বলে অ্যাথেরোস্ক্লেরোসিস। হৃদযন্ত্রের সংলগ্ন শিরা বা ধমনীতে এই ধরনের অবরোধ দেখা দিলে তা যেমন হৃদরোগের কারণ হতে পারে তেমনই মস্তিষ্কের রক্তনালীতে এই ঘটনা ঘটলে বাড়ে স্ট্রোকের সম্ভবনা। কিন্তু স্বাস্থ্যকর খাদ্যাভাস এই রোগের আশঙ্কা অনেকটাই কমাতে পারে বলে মত বিশেষজ্ঞদের। এই রোগের সম্ভবনা কমাতে অত্যন্ত উপযোগী হতে পারে ওটস। কীভাবে? চলুন জেনে নেয়া যাক- 

>> ওটের খোলাতে থাকে প্রচুর পরিমাণ ফাইবার যা শিরা ও ধমনীকে ভালো রাখতে সহায়তা করে বলে মত বিশেষজ্ঞদের।

>> অ্যাথেরোস্ক্লেরোসিস রোগে ঝুঁকির সম্ভাবনা অনেকাংশে বৃদ্ধি করে এলডিএল বা খারাপ কোলেস্টেরল। ওটস খেলে দেহে খারাপ কোলেস্টেরলের পরিমাণ হ্রাস পায় অনেকটাই।

>> ওটসে থাকে অ্যাভেনানথ্রামাইড নামক অ্যান্টি-অক্সিড্যান্ট। প্রদাহ সৃষ্টিকারী একাধিক প্রোটিন কমাতে এটি সহায়তা করে। এছাড়া এমন কিছু উপাদান যা শিরা ও ধমনীর দেয়ালে আটকে থাকে তা কমাতেও সহায়তা করে এটি।

>> বিশেষজ্ঞদের মতে, ওটস ফাইবারে থাকে এমন কিছু উপাদান যা রক্তনালীর পুনর্গঠনে সহায়তা করে। ফলে ক্ষতিগ্রস্ত রক্তনালীগুলো পুনরায় স্বাস্থ্যকর হয়ে ওঠে। হৃদযন্ত্রে অক্সিজেন সরবরাহ করার জন্য এই প্রক্রিয়াটির গুরুত্ব অপরিসীম। অ্যাথেরোস্ক্লেরোসিস রোগে যেহেতু রক্ত সঞ্চালনে সমস্যা দেখা যায় সেহেতু রক্তের পর্যাপ্ত অক্সিজেন বাঁচাতে পারে প্রাণ।

 কুষ্টিয়ার  বার্তা
 কুষ্টিয়ার  বার্তা
এই বিভাগের আরো খবর