শনিবার   ০৫ ডিসেম্বর ২০২০   অগ্রাহায়ণ ২০ ১৪২৭   ১৯ রবিউস সানি ১৪৪২

 কুষ্টিয়ার  বার্তা
সর্বশেষ:
দৌলতপুরে দুস্থ ৪২ প্রতিবন্ধী পেল হুইল চেয়ার ২০২৫ সালের মধ্যে শিশুশ্রম মুক্ত হবে দেশ কার্ডে ছবি এঁকে প্রধানমন্ত্রীর লাখ টাকার চেক পেল কুষ্টিয়ার মরিয়ম ১৩-১৫ ডিসেম্বর পর্যন্ত স্মৃতিসৌধ এলাকায় প্রবেশ নিষেধ
১৬

ঠান্ডা মাথায় ৩৯ নিরপরাধ আফগানকে হত্যা করেছে অস্ট্রেলীয় সেনারা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:

প্রকাশিত: ১৯ নভেম্বর ২০২০  

দীর্ঘদিন পর সত্য সামনে এলো। নিরপরাধ আফগান নাগরিকদের নৃশংষভাবে হত্যা করেছে অস্ট্রেলীয় সেনারা। অস্ট্রেলিয়ার এলিট আর্মির আফগান ফাইলে রয়েছে এমন ৩৯টি হত্যার তথ্য।

যুদ্ধে নয়, ঠান্ডা মাথায় সাধারণ আফগান এবং যুদ্ধবন্দিদের হত্যা করেছিল অস্ট্রেলিয়ার এলিট আর্মি। সম্প্রতি সে কথা স্বীকার করে নিয়েছে অস্ট্রেলিয়ার সামরিক কর্তৃপক্ষ।

সেনা বাহিনীর উচ্চপদস্থ এক কর্মকর্তা সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছেন, ঘটনার জন্য তারা অত্যন্ত দুঃখিত। ঘটনার তদন্ত শুরু হয়েছে এবং দোষীরা শাস্তি পাবেন।

কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল-জাজিরা জানিয়েছে, দীর্ঘ চার বছরের তদন্ত শেষে বৃহস্পতিবার (১৯ নভেম্বর) প্রতিবেদনটি প্রকাশ করে অস্ট্রেলিয়ার সামরিক কর্তৃপক্ষ (এডিএফ)। সেখানে আফগানিস্তানে ৩৯ জন নিরপরাধ মানুষকে হত্যার জন্য বাহিনীটির সদস্যদের দায়ী করা হয়।

২০০১ সালে দক্ষিণ এশিয়ার দেশটিতে শুরু হওয়া ইঙ্গ-মার্কিন অভিযানে অস্ট্রেলিয়ার সেনা সদস্যরা শিশুসহ নিরস্ত্র মানুষকে হত্যা করেছিল বলে স্থানীয় সংবাদমাধ্যমে প্রকাশ পায়। মূলত এর জেরে ২০১৬ সালে একটি তদন্ত কমিটি গঠন করে অস্ট্রেলিয়া। যদিও শুরুর দিকে দেশটির সরকার বিষয়টি চাপা দেয়ার চেষ্টা করেছিল।

বৃহস্পতিবার অস্ট্রেলিয়ার চিফ অব ডিফেন্স ফোর্স জেনারেল অ্যাঙ্গাস ক্যাম্পবেল জানান, অস্ট্রেলিয়ার বিশেষ বাহিনী আফগানিস্তানে নিরস্ত্র বন্দি, কৃষক বা বেসামরিক নাগরিকদের হত্যা করেছিল বলে তদন্ত কমিটি প্রমাণ পেয়েছে।

প্রতিবেদন থেকে জানা যায়, ২৩টি ঘটনায় ওই ৩৯ আফগান নাগরিককে হত্যা করেছিল অস্ট্রেলিয়ার সামরিক সদস্যরা। এর জন্য দেশটির স্পেশাল এয়ার সার্ভিস রেজিমেন্টের ২৫ জন সদস্য দায়ী। এ ব্যাপারে নির্ভরযোগ্য তথ্য পাওয়া গেছে।

অপরাধ ঘটানোর সময় দায়ী সেনারা ‘বিভ্রান্ত’ ছিল না বলে জেনারেল ক্যামবেল জানান। ভুলবশতও এসব মানুষকে হত্যা করা হয়নি। যুদ্ধের ইতিহাসে এ ঘটনাকে ‘লজ্জাজনক’ বলে আখ্যা দেন অস্ট্রেলীয় শীর্ষ সামরিক কর্মকর্তা।

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি নিউজের খবরে বলা হয়, গুরুত্বপূর্ণ এ তদন্ত প্রতিবেদন প্রকাশের পর অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী স্কট মরিসন আফগানিস্তানের প্রেসিডেন্ট আশরাফ ঘানিকে ফোন করে গভীর দুঃখ প্রকাশ করেন।

আফগান প্রেসিডেন্ট জানান, যুদ্ধাপরাধের জন্য দায়ী অস্ট্রেলীয় সেনাদের বিচারের সম্মুখীন করা হবে বলে তাকে প্রতিশ্রুতি দেয়া হয়েছে।

বস্তুত, শুধু অস্ট্রেলিয়ার সেনা নয়, যুক্তরাষ্ট্রসহ একাধিক দেশের সেনাদের বিরুদ্ধে এই ধরনের অসংখ্য অভিযোগ রয়েছে। দীর্ঘদিন ধরে একাধিক মানবাধিকার সংস্থা এই বিষয়গুলি নিয়ে আলোচনা করছে। কিন্তু কোনো দেশই এতদিন পর্যন্ত পর্যন্ত অভিযোগগুলোকে গুরুত্ব দেয়নি।

 কুষ্টিয়ার  বার্তা
 কুষ্টিয়ার  বার্তা
এই বিভাগের আরো খবর