বুধবার   ০৮ এপ্রিল ২০২০   চৈত্র ২৫ ১৪২৬   ১৪ শা'বান ১৪৪১

 কুষ্টিয়ার  বার্তা
১০৭

‘চীন থেকে চার্টার্ড ফ্লাইটে আনা হবে চিকিৎসা সামগ্রী’

নিউজ ডেস্ক:

প্রকাশিত: ২১ মার্চ ২০২০  

বাংলাদেশের আহ্বানের পরিপ্রেক্ষিতে করোনাভাইরাস শনাক্তকরণে ১০ হাজার কিটসহ চিকিৎসা সামগ্রী দিবে চীন। চার্টার্ড ফ্লাইটে এসব সামগ্রী দেশে আনা হবে বলে জানিয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আবদুল মোমেন।

শনিবার (২১ মার্চ) দুপুরে রাষ্ট্রীয় অতিথি ভবন পদ্মায় করোনাভাইরাসের কারণে উদ্ভূত পরিস্থিতি নিয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে ড. মোমেন এ কথা বলেন। এসময় পররাষ্ট্র সচিব মাসুদ বিন মোমেনও উপস্থিত ছিলেন।

করোনাভাইরাস শনাক্তকরণে বাংলাদেশকে ১০ হাজার কিটের পাশাপাশি ১৫ হাজার সার্জিক্যাল মাস্ক এন-৯৫, ১০ হাজার চিকিৎসক ও নার্সের সুরক্ষায় গাউন এবং এক হাজার ইনফ্রারেড থার্মোমিটার দিচ্ছে চীন।

ড. মোমেন বলেন, শোনা যাচ্ছে দেশে করোনা শনাক্তকরণ কিট নেই। আমরা চীনকে অনুরোধ করেছিলাম। তারা ১০ হাজার টেস্টিং কিটসহ আরও বেশ কিছু চিকিৎসা সামগ্রী প্রস্তুত রেখেছে আছে। প্রয়োজনে সেসব চার্টার্ড ফ্লাইট দিয়ে নিয়ে আসব।

করোনাভাইরাস নিয়ে আতঙ্কিত না হওয়ার আহ্বান জানিয়ে পররাষ্ট্রমন্ত্রী দেশে ফেরত আসা প্রবাসীদের কোয়ারেন্টাইনের নিয়ম মেনে চলার আহ্বান জানান।

তিনি জানান, করোনার বিস্তাররোধে বিভিন্ন দেশের সাথে আকাশপথের চলাচল বন্ধ করার পাশাপাশি যেসব উদ্যোগ সরকার নিয়েছে তা বিভিন্ন দেশে আমাদের মিশন প্রধানদের জানানো হয়েছে। তাদের মাধ্যমে আমরা প্রবাসীদের অনুরোধ করছি, কেউ দেশে ফিরতে চাইলে অন্তত কিছু দিন অপেক্ষা করুন।

ড. মোমেন বলেন, বিভিন্ন দেশের সাথে আমাদের আলাপ হয়েছে। বিদেশে প্রবাসী বাংলাদেশিদের ভিসা শেষ হয়ে গেলেও সমস্যা নেই। সব দেশই জানিয়েছে, প্রয়োজনে তারা ভিসার মেয়াদ বাড়াবে। তাই প্রবাসীদের ভয়ের কোনো কারণ নেই।

তিনি বলেন, প্রবাসীরা যেখানে যেখানে আছেন, তারা দেখেছেন করোনাভাইরাস নিয়ে সেসব দেশের সরকার কী ধরনের পদক্ষেপ নিয়েছে। সৌদি আরব মক্কায় নামাজ বন্ধ করে দিয়েছে। তার মানে বিষয়টি কত সিরিয়াস। আপনারাও বিষয়টি সিরিয়াসলি নিন।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী জানান, পুলিশ, স্বাস্থ্য, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়সহ সংশ্লিষ্ট দফতর ও সংস্থায় ছুটি বাতিল করে করোনাভাইরাস সংক্রান্ত কাজে সবাইকে তৎপর হওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। এ বিষয়ে জনগণ ও সরকারের যৌথ উদ্যোগ নেয়া দরকার। জনগণ সজাগ হলে এ পরিস্থিতি মোকাবিলা করা সম্ভব।
 
তিনি বলেন, এখন দেশে মাত্র ২০ জন আক্রান্ত হয়েছেন। প্রতিরোধমূলক ব্যবস্থা নিলে কোভিড-১৯ এর বিস্তাররোধ সম্ভব হবে।

 কুষ্টিয়ার  বার্তা
 কুষ্টিয়ার  বার্তা
এই বিভাগের আরো খবর