রোববার   ০৯ মে ২০২১   বৈশাখ ২৬ ১৪২৮   ২৭ রমজান ১৪৪২

 কুষ্টিয়ার  বার্তা
সর্বশেষ:
ঘরমুখো জনস্রোত ঠেকাতে শিমুলিয়া-পাটুরিয়া ঘাটে বিজিবি মোতায়েন ভারতফেরত ৫০ যাত্রী মাগুরায় আটক ৩২৭৯ পরিবারকে খাদ্য সহায়তা দিলো সেনাবাহিনী
৫৬

খোকসায় বিস্তীর্ণ মাঠ জুড়ে সোনালি ধান, কৃষকের ঘরে উৎসবের আমেজ

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ২৩ এপ্রিল ২০২১  

চলতি মৌসুমে কুষ্টিয়ার খোকসা উপজেলায় ফসলি জমির মাঠগুলোতে এখন শোভা পাচ্ছে পাকা বোরো ধান। এবারে বোরো ধানের বাম্পার ফলনে কৃষকের মুখে হাসি ফুটে উঠছে। সরেজমিনে দেখা গেছে, বিস্তীর্ণ মাঠ জুড়ে সোনালি ধানের রঙে ভরে রয়েছে উপজেলার মাঠগুলো। মাঠে মাঠে চলছে ধান কাটার উৎসব। যা কয়েকদিনেই ঘরে তুলবে কৃষক। 

কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর সূত্রে জানা যায়, এ বছর করোনার মধ্যেই কৃষকরা লক্ষ্যমাত্রার চেয়েও অতিরিক্ত ১৩০ হেক্টর জমিতে বোরো আবাদ করেছেন। যেখানে গত রবি মৌসুমে এলাকায় ১ হাজার ২২৫ হেক্টর জমিতে আবাদ করা হলেও চলতি মৌসুমে তা বেড়ে ১ হাজার ৩৫৫ হেক্টর জমিতে বোরো ধান আবাদ করা হয়েছে। উন্নত হাইব্রিড বীজ, সার ও সময়মতো সেচ কার্য সম্পন্ন করায় এ বছর ধানের ফলন অনেক ভাল হয়েছে। 

কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর জানায়, উপজেলার ২৮ টি ব্লকের ৯ টি ইউনিয়ন ও একটি পৌরসভায় বোরো ধানের চাষ করেছেন স্থানীয় কৃষকরা। পৌর এলাকায় ১১০ হেক্টর, খোকসা ইউনিয়ন ৯০ হেক্টর, জানিপুর ইউনিয়নে ৪৫ হেক্টর, বেতবাড়িয়া ইউনিয়নে ৭৫ হেক্টর, শিমুলিয়া ইউনিয়নের ১৩৫ হেক্টর, শোমসপুর ইউনিয়নে ৪০৫ হেক্টর, গোপগ্রাম ইউনিয়নে ২১৫ হেক্টর, আমবাড়িয়া ইউনিয়নে ১১৫ হেক্টর, জয়ন্তীহাজরা ইউনিয়নে ৫৫ হেক্টর ও ওসমানপুর ইউনিয়নের ৪৫ হেক্টর জমিতে বোরো ধানের আবাদ হয়েছে চলতি মৌসুমে। এছাড়াও ব্লকে নিয়মিতভাবে রোগ ও পোকার আক্রমণ সংক্রান্ত পূর্বাভাস জরিপ করছেন কৃষি কর্মকর্তারা

উপজেলার কৃষকেরা জানান, কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর থেকে কৃষকদের প্রশিক্ষণ নিয়ে এবং উন্নত হাইব্রিড ব্রি ধান-৫৯ বীজ বিনামূল্যে পাওয়া বোরো ধানের আবাদ করেছে বেশীরভাগ কৃষক। এবারের ধান গুলো খুব ভালো হয়েছে। যদি আবহাওয়া ভালো থাকে এবার ফলন ভালো হবে বলে আশা করছি।

উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ সবুজ কুমার সাহা জানান, উপজেলার বাছাইকৃত কৃষকদের মধ্য থেকে ১৫০ জন কৃষককে বিনামূল্যে উন্নত জাতের ধানের বীজ প্রদান করা হয়েছে। এছাড়াও ৩৫ জন জন কৃষককে উন্নত জাতের বোরো ধানের বীজ ও সার প্রদান করা হয়েছে।

কৃষি অফিসের উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তারা সার্বক্ষণিক মাঠ পরিদর্শন করে প্রয়োজনীয় কীটনাশক ও আগাছা দমনের পরামর্শ প্রদান করায় এবারে বোরো ধানের বাম্পার ফলনের আশা করছি। স্থানীয় কৃষকদের অভিমতে এবার যদি আবহাওয়া ভালো থাকে এবং কোন প্রকার পোকামাকড় আক্রমণ না করে অবশ্যই উপজেলায় বোরো ধানের বাম্পার ফলন হবে।

তিনি আরও বলেন, এবারে বিঘা প্রতি ২০ থেকে ২৫ মণ বোরো ধান হবে বলে আশা করছি আমরা। এসব ধানে এবারও বাম্পার ফলন হবে। বাজারে ধানের দাম ভাল পেলে কৃষকের স্বপ্ন পূরণ শতভাগ পূরণ হবে বলে আশা পোষন করেন তিনি।


 

 কুষ্টিয়ার  বার্তা
 কুষ্টিয়ার  বার্তা
এই বিভাগের আরো খবর