বুধবার   ১১ ডিসেম্বর ২০১৯   অগ্রাহায়ণ ২৬ ১৪২৬   ১৩ রবিউস সানি ১৪৪১

৩৯

কুষ্টিয়া বিআরটিএ অফিসে চালকদের ভিড়

নিজস্ব প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ২২ নভেম্বর ২০১৯  

কুষ্টিয়ায় সম্প্রতি কার্যকর হয়েছে বহুল আলোচিত সড়ক পরিবহন আইন। এই আইনে সড়কে নিয়ম ভঙ্গ করলে জরিমানা বেড়েছে হাজার গুণ পর্যন্ত। ড্রাইভিং লাইসেন্স কিংবা ফিটনেস সনদ না থাকলে সর্বোচ্চ ২৫ হাজার টাকা পর্যন্ত জরিমানার বিধান রয়েছে নতুন আইনে। হতে পারে ছয় মাস পর্যন্ত কারাদণ্ড। তাই বৈধ কাগজপত্র পেতে এখন উপচেপড়া ভিড় এখন বিআরটিএ’র কুষ্টিয়া অফিসে।

বৃহস্পতিবার (২১ নভেম্বর) সকালে কুষ্টিয়া জেলা প্রশাসকের কার্যালয় সংলগ্ন বিআরটিএ অফিসে গিয়ে দেখা গেছে, শতশত মানুষের দীর্ঘ লাইন। বিশেষ করে মোটরসাইকেল চালকদের ভিড় লক্ষ্য করা গেছে। এছাড়া অফিসের পার্শ্ববর্তী এনআরবিসি ব্যাংকে দীর্ঘ লাইন ধরে মানুষ টাকা জমা দিচ্ছেন।

দৌলতপুর উপজেলার কল্যাণপুর থেকে আসা মাহাবুল ইসলাম নামের এক মোটরসাইকেল চালক জানান, গাড়ি আছে কিন্তু ড্রাইভিং লাইসেন্স নেই। লাইসেন্স করতে বিআরটিএ অফিসে এসে দেখি দীর্ঘ লাইন। কোর্ট চত্বরে মডার্ন ফটোস্ট্যাটের দোকানে গেলে তিনি আমার কাছ থেকে ৭০০ টাকা ও প্রয়োজনীয় কাগজপত্র নিয়ে বলেন, দুই সপ্তাহ পর এসে লার্নার নিয়ে যেতে।

আব্দুর রহমান নামের অরেক মোটরসাইকেল চালক জানান, অনেক বছর ধরেই মোটরসাইকেল চালাচ্ছি। ড্রাইভিং লাইসেন্স ছিল না। আগে ম্যানেজ করে চলা যেত। এখনতো জরিমানা বেড়েছে। তাই দীর্ঘ লাইনে দাঁড়িয়েও লার্নার করে নিচ্ছি।

বাংলাদেশ রোড ট্রান্সপোর্ট অথরিটি (বিআরটিএ) কুষ্টিয়ার সহকারী পরিচালক এটিএম জালাল উদ্দিন জানান, ‘বিআরটিএ অফিসে লোকবল সংকট রয়েছে। তারপরও সেবা প্রত্যাশীদের দ্রুত সেবা দেওয়ার চেষ্টা করা হচ্ছে। তবে হঠাৎ চাপ বেড়েছে নতুন আইনের কারণেই। সবাই ছুটছে কাগজপত্র ঠিক করতে। তবে নতুন এ আইনকে সাধুবাদ জানিয়েছেন চালকরা।

মোটরযান পরিদর্শক ওমর ফারুক জানান, ‘নতুন আইন কার্যকর হওয়ায় চাপ বেড়েছে। বিশেষ করে মোটরসাইকেল চালকরা ভিড় জমাচ্ছে। লাইসেন্স নিতে আবেদন জমা পড়ছে বেশি। আগে দিনে ৫০টির মতো আবেদন পড়লেও এখন দিনে প্রায় কয়েকশ জমা পড়ছে। অন্যান্য কাজও বেড়েছে।

কুষ্টিয়া ট্রাফিক পুলিশের ইন্সপেক্টর (টিআই প্রশাসন) ফকরুল ইসলাম জানান, নতুন আইন হওয়ায় চালকরা বৈধ কাগজপত্র যেমন সংগ্রহ করছেন, আবার অনেকে মোটরসাইকেল চালানো থেকে বিরত থাকছে। রাস্তায় মোটরসাইকেল কমে গেছে।

এদিকে জেলায় এবং শহরে পর্যবেক্ষণ করে দেখা গেছে, আগের তুলনায় আইন মানার প্রবণতা বেড়েছে। বিশেষ করে মোটরসাইকেল চালকরা হেলমেট ছাড়া বাইরে বের হচ্ছেন না। সবাই আইন মেনে মোটরসাইকেল চালাচ্ছেন। তবে আগের তুলনায় সড়কে কমে গেছে মোটরসাইকেল।

 কুষ্টিয়ার  বার্তা
 কুষ্টিয়ার  বার্তা
এই বিভাগের আরো খবর