শনিবার   ২৪ জুলাই ২০২১   শ্রাবণ ৮ ১৪২৮   ১৪ জ্বিলহজ্জ ১৪৪২

 কুষ্টিয়ার  বার্তা
সর্বশেষ:
অ্যাস্ট্রাজেনেকার আড়াই লাখ ডোজ টিকা আসছে শনিবার কুষ্টিয়ায় করোনা ও উপসর্গে আরও ১৭ মৃত্যু, শনাক্ত ৫৭ ভারতে রেকর্ড ১.২৮ বিলিয়ন ডলারের পণ্য রপ্তানি মেহেরপুরে রাজনগর গ্রামবাসীর জন্য সৌদিপ্রবাসীর অ্যাম্বুলেন্স উপহার রবিবার থেকে ব্যাংক লেনদেন দুপুর দেড়টা পর্যন্ত ‘টিকার সর্বনিম্ন বয়সসীমা ১৮ বছর করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার’
১০৩

করোনায় মৃতদের দাফনে কাজ করছে খোকসার একদল স্বেচ্ছাসেবী

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ১ জুলাই ২০২১  

করোনা সংক্রমণের ভয়ে স্বজন ও প্রতিবেশীরা লাশ দাফনে এগিয়ে না আসলেও জীবনের ঝুঁকি নিয়ে লাশ দাফন করছেন কুষ্টিয়ার খোকসায় হাফেজ সালাউদ্দিনসহ স্বেচ্ছাসেবী পনেরোজন যুবক ও নারী।

জানা গেছে, সদস্যদের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী করোনা আক্রান্ত হয়ে কোনও ব্যক্তি মারা গেলে স্বাস্থ্যবিধি মেনে তাদের জানাজা ও দাফনের সকল আনুষ্ঠানিকতার কাজ শুরু করেন তারা। সালাউদ্দিন ও তাঁর টিম এলাকার করোনায় মৃত ১১ জনের লাশ দাফন করেছেন। করোনাকালে নিজেদের নিয়মিত দায়িত্বের পাশাপাশি ভবিষ্যতেও মানবসেবার এমন কাজে করে মানুষের পাশে থাকতে চান তাঁরা।

সর্বশেষ তারা বুধবার (৩০ জুন) উপজেলার ওসমানপুর ইউনিয়নের গণেশপুর গ্রামের বীর মুক্তিযোদ্ধা এডভোকেট আব্দুল খালেক করোনায় মারা গেলে তার দাফন কার্য সম্পন্ন করেন। 

হাফেজ সালাউদ্দিন বলেন, উপজেলায় এ পর্যন্ত করোনায় মারা যায় ১১ জন। এদের সকলের দাফন কার্য সম্পন্নসহ মানুষের সেচ্ছাসেবী হয়ে কাজ করেছে। উপজেলা প্রশাসনের সার্বিক সহযোগিতায় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু ব্যক্তির লাশ দাফন কার্য সম্পন্ন করতে ছুটে চলে নারীসহ দুই টিমের ১৫ জন সদস্য। এ ছাড়াও নারীদের দাফন কার্য সম্পন্ন করতে রয়েছে নারী টিমও।

তিনি বলেন, একদিন সবাইকে মরতে হবে, সেই চিন্তা থেকে আল্লাহ্ ওপর ভরসা রেখে যথেষ্ট নিরাপত্তা নিয়ে লাশ দাফন শুরু করি। যেখানে স্বজন ও প্রতিবেশীরা কেউ লাশ দাফনে এগিয়ে না আসায় লাশ দাফনে উদ্যোগী হন সেই প্রথম থেকেই।

ছলছল চোখে তিনি আরও বলেন, দিন দিন আমাদের কাজের চাপ বাড়ছে। সৃষ্টিকর্তার কাছে শুধু দোয়া করি, করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে আর যাতে কাউকে মৃত্যুবরণ করতে না হয়। যে স্বেচ্ছাসেবকেরা লাশ সৎকার ও দাফনের কাজ করছেন তাঁদের নিরাপত্তার বিষয়টি সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়ে দেখেছেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও সার্বিক সহযোগিতাও করছেন তিনি।

জীবনের ঝুঁকি নিয়ে স্বেচ্ছায় দাফন কাজে অংশগ্রহণকারী টিমের অন্যান্য সদস্যরা হলেন, আব্দুর রাজ্জাক, জামালা উদ্দিন, সাদ্দাম হোসেন, শুয়াইবুর রহমান, আব্দুল আলিম, নুরমুসা, হাবিবুর রহমান, আশরাফুল ইসলাম, আব্দুস সাত্তার, খলিলুর রহমান ও নারী সদস্যসহ পনেরোজন।

মানবিক এই উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়েছে এলাকাবাসীসহ প্রশাসনের কর্তাব্যক্তিরা।

 কুষ্টিয়ার  বার্তা
 কুষ্টিয়ার  বার্তা
এই বিভাগের আরো খবর