বুধবার   ১১ ডিসেম্বর ২০১৯   অগ্রাহায়ণ ২৬ ১৪২৬   ১৩ রবিউস সানি ১৪৪১

৩১

আফগানিস্তানকে হারিয়ে ইমার্জিং কাপের ফাইনালে বাংলাদেশ

ক্রীড়া ডেস্ক

প্রকাশিত: ২২ নভেম্বর ২০১৯  

বল হাতে দুর্দান্ত নৈপুণ্যের পর ব্যাট হাতেও জ্বলে উঠলেন সৌম্য সরকার। অধিনায়ক নাজমুল হোসেন শান্ত পেলেন টানা তিন ফিফটির দেখা। তাতে এশিয়ান ক্রিকেট কাউন্সিল ইমার্জিং টিমস কাপের সেমিফাইনালে আফগানিস্তানকে সহজেই হারাল বাংলাদেশ। পেল ফাইনালের টিকিট।

বৃহস্পতিবার আফগানিস্তান ইমার্জিং টিমকে ৭ উইকেটে হারায় বাংলাদেশ ইমার্জিং টিমস। শনিবার ফাইনালে পাকিস্তান ইমার্জিং দলের মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ। যারা বুধবার প্রথম সেমিফাইনালে ভারতকে হারিয়েছে ৩ রানে।

এদিন মিরপুর শেরে বাংলা জাতীয় স্টেডিয়ামে টস হেরে আগে ব্যাট করতে নেমে ৯ উইকেটে ২২৮ রানের পুঁজি গড়ে আফগানরা। দারউইশ রাসুলির ১১৪ রানের ইনিংসের পরও দলটির স্কোর বড় হয়নি। জবাব দিতে নেমে ১০.১ ওভার বাকি থাকতেই মাত্র ৩ উইকেট হারিয়ে জয় নিশ্চিত করে স্বাগতিকেরা। সৌম্য ৬১ ও শান্ত খেলেন ৫৯ রানের ইনিংস।

লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে চতুর্থ ওভারেই বিদায় নিয়েছিলেন মোহাম্মদ নাঈম শেখ। দলীয় ২৬ রানে ব্যক্তিগত ১৭ রান করে ফেরেন তিনি। এরপর সৌম্য ও শান্ত গড়লেন ১০৭ রানের জুটি। সৌম্য ৫৯ বলে ৩টি করে ছক্কা ও চারে খেলেন ৬১ রানের ইনিংস। সৌম্য ফেরার খানিক পরই বিদায় নেন শান্ত। তার আগেই অবশ্য ফিফটি তুলে নিয়েছিলেন তিনি। ৬৮ বলে ৫ চার ও ১ ছক্কায় ৫৯ রান করেন শান্ত। নেপালের বিপক্ষে আগের ম্যাচে অপরাজিত ৫৯ ও ভারতের বিপক্ষে ৯৪ রানের ইনিংস খেলেছিলেন এই বাঁহাতি।

২৬.২ ওভারে ১৫৪ রানে যখন শান্ত ফিরলেন জয় থেকে তখন ৭৫ রান দূরে বাংলাদেশ। ইয়াসির আলি ও আফিফ হোসেন সেই বাকি কাজটা সেরেছেন ভালোভাবেই। ইয়াসির অপরাজিত ৩৮ ও আফিফ অপরাজিত ৪৫ রান করেন। আফগানদের পক্ষে সর্বাধিক ২ উইকেট নিয়েছেন আব্দুল ওয়াসি।

 কুষ্টিয়ার  বার্তা
 কুষ্টিয়ার  বার্তা
এই বিভাগের আরো খবর