রোববার   ২৩ জুন ২০২৪   আষাঢ় ৯ ১৪৩১   ১৬ জ্বিলহজ্জ ১৪৪৫

 কুষ্টিয়ার  বার্তা
সর্বশেষ:
শেখ হাসিনা-নরেন্দ্র মোদি বৈঠকে সই হলো ১০ সমঝোতা স্মারক বাংলাদেশকে ৯০০ মিলিয়ন ডলার ঋণ দিল বিশ্বব্যাংক ৭৫ বছরে আওয়ামী লীগের চ্যালেঞ্জ সাম্প্রদায়িক শক্তি বাংলাদেশিদের জন্য ই-মেডিকেল ভিসা চালু করছে ভারত রাষ্ট্রপতির সঙ্গে সেনাবাহিনী প্রধানের বিদায়ী সাক্ষাৎ
৮৪

আইসিটি বিভাগে চাকরি পেলেন দুই হাত হারানো সেই অদম্য রায়হান

প্রকাশিত: ১৬ মে ২০২৩  

তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি (আইসিটি) বিভাগে চাকরি হয়েছে দুই হাত হারানো চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র বাহার উদ্দিন রায়হানের।

আইসিটি বিভাগের এনহ্যান্সিং ডিজিটাল গভর্নমেন্ট অ্যান্ড ইকোনমি (ইডিজিই) প্রকল্পের ‘প্রশিক্ষণ সমন্বয়ক’ পদে তাকে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। 

সোমবার রাজধানীর আইসিটি টাওয়ারে আনুষ্ঠানিকভাবে রায়হানের হাতে নিয়োগপত্র তুলে দেন আইসিটি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক।

রায়হান যখন স্কুলের ছাত্র তখন ট্রান্সফরমারের বৈদ্যুতিক তারের স্পর্শে তার দুই হাত ঝলসে যায়। সেই থেকে এক হাত নেই, আরেক হাত আছে কনুই পর্যন্ত। হাত হারিয়েও দমে যাননি রায়হান। অদম্য এই মানুষটি মুখ দিয়ে লিখে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইতিহাসে স্নাতকোত্তর পাশ করেছেন। স্নাতকোত্তরে জিপিএ ৪-এর মধ্যে পেয়েছেন ৩.১৩। যুক্ত ছিলেন বিভিন্ন সামাজিক কাজেও। হাত না থাকার কারণে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের দ্বারে দ্বারে ঘুরেও চাকরি পাননি।

রায়হানকে নিয়ে গত ৭ মে একটি বিশেষ সাক্ষাৎকার প্রচার হয়; যেটি নজর কাড়ে সরকারের আইসিটি বিভাগের। 

চাকরি পাওয়ার সুসংবাদ জানিয়ে রায়হান বলেন, আগামী মাসে চাকরিতে যোগদান করব। তিনি বলেন, নিউজ হওয়ার পর আইসিটি বিভাগ আমার সঙ্গে যোগাযোগ করেছে। এরপর আমি তাদের সঙ্গে দেখা করি। তারা আমার সিভি দেখেছে, কাজ ও অভিজ্ঞতা দেখেছেন। 

তিনি বলেন, চাকরি পাওয়ার আনন্দ ভাষায় প্রকাশ করতে পারব না। আমার পরিবার অনেক খুশি। আমি সবার প্রতি কৃতজ্ঞ। 

আইসিটি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক তার ফেসবুক পেজে লেখেন- ‘আজ অন্যরকম একটি দিন আমাদের জন্য। শৈশবে দুই হাত হারানো অদম্য তরুণ বাহার উদ্দিন রায়হান আজ যোগ দিলেন আইসিটি পরিবারে। এনহান্সিং ডিজিটাল গভর্নমেন্ট অ্যান্ড ইকোনমি (EDGE) প্রকল্পের অধীনে ১,০০,০০০ প্রশিক্ষণ কার্যক্রম তত্ত্বাবধানের গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব কাঁধে তুলে নিলেন তিনি।’

রায়হানকে নিয়োগপত্র তুলে দেওয়ার অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিলের (বিসিসি) নির্বাহী পরিচালক রনজিৎ কুমার, আইসিটি বিভাগের অতিরিক্ত সচিব মোহাম্মদ নাভিদ শফিউল্লাহ, ইডিজিই প্রকল্পের প্রকল্প পরিচালক ড. মুহম্মদ মেহেদী হাসান, পলিসি অ্যাডভাইজার আব্দুল বারী, কম্পোনেন্ট টিম লিডার ড. মাহফুজুর ইসলাম শামীমসহ আইসিটি বিভাগের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ।

রায়হানের বাড়ি কক্সবাজারের চকরিয়া উপজেলার লক্ষ্যারচর ইউনিয়নে। ২০০৪ সালের ৩০ অক্টোবর এক দুর্ঘটনায় এক হাত ও আরেক হাতের কনুই পর্যন্ত হারান তিনি। দুর্ঘটনার পর আয়ত্ত করেন মুখ দিয়ে লেখা। 

২০০৮ সাল থেকে আবার পড়াশোনা শুরু করেন রায়হান। চকরিয়া সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ে তৃতীয় শ্রেণিতে ভর্তি হন। ২০১৪ সালে ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগ থেকে জিপিএ ৩ দশমিক ৪১ পেয়ে এসএসসি পাশ করেন। এরপর মানবিক বিভাগে ভর্তি হন চকরিয়া কলেজে। সেখান থেকে এইচএসসি পাশ করে প্রতিবন্ধী কোটায় চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ইতিহাস বিভাগে ভর্তির সুযোগ পান তিনি।

 কুষ্টিয়ার  বার্তা
 কুষ্টিয়ার  বার্তা